নাকুগাঁ স্থলবন্দর নিয়ে নতুন আশা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৩ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৬,   ১৭ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

নাকুগাঁ স্থলবন্দর নিয়ে নতুন আশা

 প্রকাশিত: ১৯:৫৯ ১৫ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৯:৫৯ ১৫ নভেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

শেরপুরের নালিতাবাড়ী নাকুগাঁও স্থলবন্দরে প্রায় এক বছর ধরে ভারতে আইনি জটিলতার জন্য দেশি আমদানিকারকরা সেখান থেকে কয়লা ও পাথর আনতে পারছেন না। এতে নাকুগাঁবাসী হতাশা ও জীবিকার শঙ্কায় ছিলেন। 

সম্প্রতি কয়লা ও পাথর আমদানির জন্য ভুটানের রফতানিকারকদের সঙ্গে দেশের আমদানিকারকদের কয়েক দফা বৈঠকে নতুন আশার আলো দেখছেন স্থানীয় লোকজন ও প্রশাসন। স্থলবন্দরে যদি ভুটান থেকে পুনরায় কয়লা ও পাথর আমদানি হয়, তবে রাষ্ট্র রাজস্ব আহরণ ও স্থানীয় শ্রমিকদের মধ্যে কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসবে।  

নাকুগাঁও কাস্টমস কার্যালয় সূত্র জানায়, স্থলবন্দরটি ২০১৫ সালের ১৮ জুলাই পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দর হিসেবে ঘোষিত হয়। আমদানিকারকরা প্রথমেই ভারত থেকে কয়লা ও পাথর আমদানি শুরু করেন। সম্প্রতি ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলং জেলার একটি পরিবেশবাদী সংগঠন ‘ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইব্যুনাল’ (এনজিটি) আদালতে কয়লা ও পাথর উত্তোলন বন্ধে রিট মামলা দায়ের করে। ফলে ভারতের পরিবেশ বিষয়ক ওই আদালত অস্থায়ীভাবে খনি থেকে কয়লা উত্তোলন ও স্থানান্তর বন্ধের নির্দেশ দেন। এ কারণে কয়লা এবং পাথর আমদানি বন্ধ হয়। ফলে এই দুই পণ্যে আমদানিতে সংশ্লিষ্টরা ও প্রায় তিন হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়ে। 

নাকুগাঁও কয়লা ও পাথর আমদানি-রফতানিকারক সমিতির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘ভারতের পরিবেশবাদী সংগঠনের করা আদালতে রিটের কারণে ভারত থেকে কয়লা ও পাথর আমদানি বন্ধ রয়েছে। বিকল্প হিসেবে ভুটানের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কয়েক দফা বৈঠক করে নিশ্চিত হয়েছি। শিগগিরই কয়লা, পাথর ও ফল আমদানি করবো। এছাড়া ভারতে বৈধ পণ্য রফতানি হবে।’ 

নাকুগাঁও কাস্টমস অফিসের সহকারী কাস্টমস কর্মকর্তা নাজমুল বলেন, ‘আইনি জটিলতার কারণে ভারত থেকে কয়লা ও পাথর আমদানি বন্ধ। পাথর অল্প পরিসরে আসলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। ভুটানের সাথে এ বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি-রফতানি শুরু হলে এবং ভারতে আভ্যন্তরীণ সৃষ্ট সমস্যা সমাধান হবে। বন্দরে কর্ম তৎপরতা ফিরবে। রাজস্ব আয়ও বৃদ্ধি পাবে কয়েকগুণ।’

তিনি জানান, ‘২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে নাকুগাঁও বন্দরে রাজস্ব আদায় হয়েছে ৮০ লাখ ৮৪ হাজার টাকা। আর ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের আগস্ট থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত রাজস্ব আয় হয়েছে ৪ লাখ ৭১ হাজার টাকা।’

কাস্টমস’র সহকারী কমিশনার রবীন্দ্র কুমার সিংহ বলেন, ‘নাকুগাঁও আমদানি-রফতানিকারক সমিতির সভাপতি জাতীয় রাজস্ব  বোর্ড (এনবিআর) এ একটি আবেদন করেছেন। এখন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত পাওয়া গেলে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ হবে। তিনি আরও বলেন, যেহেতু দেশে দুটি বন্দর দিয়ে ভুটানের পণ্য আমদানি হচ্ছে, সে হিসাবে এই বন্দর দিয়েও সম্ভাবনা রয়েছে।’

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ

Best Electronics