.ঢাকা, শনিবার   ২৩ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৯ ১৪২৫,   ১৬ রজব ১৪৪০

মহাসড়কের জায়গায় মার্কেট নির্মাণ!

বগুড়া প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ২০:৩৮ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ২০:৩৮ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়ার নন্দীগ্রামে মহাসড়কের জায়গা জবরদখল করে মার্কেট নির্মাণ চলছে।

জানা গেছে, নন্দীগ্রাম উপজেলার কুস্তা গ্রামের আজিমুদ্দিনের ছেলে শরিফুল ইসলাম বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের রণবাঘা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন রণবাঘা মৌজার ৩২৬/১৭১ দাগের ৬ শতক পরিমাণের মহাসড়কের জায়গা জবরদখল করে মার্কেট নির্মাণ করছেন। বিষয়টি গত জুলাই মাসে বগুড়া সড়ক ও জনপদ অধিদফতর কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলে তা বন্ধ করে দেয়া হয়। এরপর রণবাঘা গ্রামের আতাউর রহমান সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবরে অধিগ্রহণকৃত জায়গার সীমানা নির্ধারণের জন্য আবেদন করলে সড়ক ও জনপদ অধিদফতর বগুড়ার সার্ভেয়ার দেলোয়ার হোসেন সরেজমিন এসে উক্ত জায়গা জরিপ করে। জরিপে ৩২৬/১৭১ দাগের ৬ শতক পরিমাণের জায়গা মহাসড়কের অধিগ্রহণকৃত হিসেবে গণ্য করা হয়। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ অধিদফতর বগুড়ার সার্ভেয়ার দেলোয়ার হোসেন বলেন, ওই জায়গা মূলত মহাসড়কের অধিগ্রহণকৃত। তা কখনোই মালিকানা নয়। আমি নিজে তা জরিপ করে দেখে মার্কেট নির্মাণ কাজ বন্ধ করতে বলেছি। এরপরেও সে জোরপুর্বক মার্কেট নির্মাণ কাজ করছে।

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ অধিদফতপ্তর বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান বলেন, মহাসড়কের জায়গা জবরদখল করে মার্কেট নির্মাণ করলে তা যথারীতিভাবে উচ্ছেদ করে দেয়া হবে। এতে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

মার্কেট নির্মাণকারী শরিফুল ইসলাম বলেন, ওই জায়গা আমার পৈতৃক সম্পত্তি। যার কাগজপত্রও রয়েছে। তাই মার্কেট নির্মাণ কাজ করছি। স্থানীয়রা বলেছে, উক্ত জায়গা সড়ক ও জনপদ অধিদফতর বগুড়ার অধিগ্রহণকৃত এবং তারা টাকাও উত্তোলন করেছে। এরপরেও সেই জায়গায় কিভাবে মার্কেট নির্মাণ করছে? এমন প্রশ্ন এলাকায় সরব হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর