ঢাকা, শনিবার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ১০ ১৪২৫,   ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০

‘আমার লাশটি কাটাছিঁড়া করতে দিও না’

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ০১:৩৪ ৯ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ০১:৫৭ ৯ ডিসেম্বর ২০১৮

ফৌজিয়া খানম অন্তু

ফৌজিয়া খানম অন্তু

কিশোরগঞ্জে সুইসাইড নোট লিখে ফৌজিয়া খানম অন্তু (২৪) নামে এক তরুণী আত্মহত্যা করেছেন। শুক্রবার দুপুরে জেলা শহরের রাকুয়াইল এলাকার নিজ বাসায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন ফৌজিয়া। 

আত্মহত্যার আগে সুইসাইড নোটে তিনি উল্লেখ করেন প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয়ে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন।

ফৌজিয়ার সুইসাইড নোট ডেইলি বাংলাদেশের পাঠকদের জন্য তুলো ধরা হলো:

চিরকুটে লেখা ছিল, “আমার মৃত্যুর জন্য সহকারী জজ সুমন মিয়া (গাইবান্ধা) দায়ী। সে আমার সব কিছু জেনেও আমাকে স্বপ্ন দেখাইছে। আমার সাথে অনেক দূর পর্যন্ত আসছে। এখন আমি তার যোগ্য না খারাপ মেয়ে বলে ছেড়ে দিল। বাট এখন আর খাইরুল ইসলাম (ভূগোল পরিবেশ) মাস্টার্স আমার ক্লাস মেট তার সাথে আমার এক সময় একটা এফেয়ার ছিল। তারে আমি হেল্প করতে গিয়ে নিজের ইমেজ নষ্ট করল। সব সময় হেল্প করেছি। আর সে আমার নামে এতো খারাপ খারাপ ছড়ায়। আর খাইরুল চিনে এই ছেলেকে। সে আমার নামে অনেক মিথ্যা কথা বলেছে। কোন দিন তার সাথে এফেয়ার ছিল না। তারপরও এমন কথা বলছে, যা মুখে বলাও পাপ।

আমার আম্মা তোমারে অনেক জ্বালিয়েছি ছোটবেলা থেকে। তুমি পারলে আমাকে ক্ষমা কর। অন্তু” চিরকুটের নিচে আরো লেখা ছিল, “আমার লাশটি কাটাছিঁড়া করতে দিও না।”

এছাড়া চিরকুটের আরেক পৃষ্ঠায় লেখা ছিল, “আম্মা কোনদিন এদের ছেড়ে দিও না। দাদার কাছে গিয়ে হলেও এর বিচার যেন হয়। তোমার কাছে এই অনুরোধ।” 

বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় চলছে। কুয়েত প্রবাসী ফরিদ উদ্দিন খাঁনের মেয়ে ফৌজিয়া খানম অন্তু মাস্টার্স ফলপ্রত্যাশী। তিন বোন ও এক ভাই এর মধ্যে ফৌজিয়া সুলতানা অন্তু সবার বড়।

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আহসান হাবীব সাংবাদিকদের জানান, ফৌজিয়া খানম অন্তুর সুইসাইড নোট এবং তার ব্যবহৃত মুঠোফোনটি জব্দ করে থানায় আনা হয়েছে। তদন্ত শেষে পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ