৩৪ ঘণ্টা তালাবদ্ধ ঘরে ক্ষুধার্ত মা

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬,   ১৮ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

৩৪ ঘণ্টা তালাবদ্ধ ঘরে ক্ষুধার্ত মা

 প্রকাশিত: ১৫:০৭ ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭   আপডেট: ১৬:০০ ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭

তালাবদ্ধ ঘর থেকে বৃদ্ধা জবেদা বেওয়াকে উদ্ধার করে ভাত খাওয়ান সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু

তালাবদ্ধ ঘর থেকে বৃদ্ধা জবেদা বেওয়াকে উদ্ধার করে ভাত খাওয়ান সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু

নাটোর শহরের দক্ষিণ পটুয়াপাড়া এলাকায় প্রায় ৩৪ ঘণ্টা ধরে ঘরে তালাবদ্ধ থাকা জবেদা বেওয়া (৭০) নামে ক্ষুধার্ত এক বৃদ্ধা মাকে উদ্ধার করেছে প্রশাসন। বুধবার রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু তাকে উদ্ধার করে রাতে ভাত খাওয়ান।

মঙ্গলবার সকালে ওই বৃদ্ধাকে ঘরে তালা দিয়ে তার ছেলে মাহবুব হোসেন চলে যান। এরপর তিনি বাড়িতে আর ফিরে আসেননি।

স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার সকালে জবেদা বেওয়াকে তার ছেলে মাহবুব হোসেন নিজ বাড়ির একটি ছোট ঘরে তালাবদ্ধ অবস্থায় আটকে রেখে বাইরে চলে যান। ফলে দীর্ঘ সময় অভুক্ত থাকেন জবেদা বেওয়া। এ সময় তিনি কান্নাকাটি ও চিৎকার করতে থাকলে প্রতিবেশিরা জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুনকে খবর দেন। পরে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু পুলিশের সহযোগিতায় বুধবার রাত ৮টায় জবেদা বেওয়াকে উদ্ধার করেন।

জবেদা বেওয়া শহরের দক্ষিণ পটুয়াপাড়া এলাকার মরহুম মোজাহার আলী তালুকদারের স্ত্রী।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু জানান, মঙ্গলবার সকালে ছেলে মাহবুব হোসেন তার বৃদ্ধা মাকে তার বাড়িতে ছোট একটি ঘরে তালাবদ্ধ অবস্থায় রেখে বাইরে চলে যান। এরপর তিনি বাড়িতে ফিরে আসেননি। পরে মা জোবেদা বেওয়া ক্ষুধার জ্বালা সইতে না পেরে কান্নাকাটি ও চিৎকার করতে থাকেন। এসময় স্থানীয়রা টের পেয়ে বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানান। পরে জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুনের নির্দেশে বুধবার রাতে পুলিশের সহযোগিতায় জোবেদা বেওয়াকে উদ্ধার করে রাতের খাবার খাওয়ান হয়।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় জেলা প্রশাসক আইন অনুয়ায়ী বৃদ্ধা মাকে ভোরণ পোষণ করতে তার ছেলে মাহবুব হোসেনকে চিঠি দিয়েছেন। এর ব্যত্যয় ঘটলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।


ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ

Best Electronics