৩০ হাজার গরু নিয়ে বিপাকে কৃষকরা

ঢাকা, শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭,   ১২ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

৩০ হাজার গরু নিয়ে বিপাকে কৃষকরা

সাইফুল ইসলাম রয়েল, কলাপাড়া ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:২৭ ২৫ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৬:৩৯ ২৫ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ল্যাম্পি স্কিন ডিজিজ। আফ্রিকা মহাদেশে পালন করা গবাদি পশুর একটি জটিল রোগ। তবে সম্প্রতি এ রোগের ভাইরাস পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় দেখা দিয়েছে। এরইমধ্যে অনেক গরু ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে উপজেলার ৩০ হাজার গরু নিয়ে বিপাকে পড়েছেন কৃষকরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলায় ল্যাম্পি স্কিন ডিজিজ’র প্রকোপ বাড়ছে। রোগটির ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় গোয়াল ঘরগুলোতে গরু আক্রান্ত হচ্ছে।

উপজেলার লালুয়া ইউপির কৃষক আলাউদ্দিন হাওলাদার বলেন, আমার গোয়ালে ৯টি গরু রয়েছে। এর মধ্যে ছয়টি গরু ল্যাম্পি স্কিন ডিজিজে  আক্রান্ত।

ধানখালী লোন্দা গ্রামের নান্নু গাজী বলেন, গোয়ালের চারটি গরুর প্রথমে জ্বর আসে। পরে একটি গরুর পা ফুলে গিয়ে সারা শরীরে গোটা উঠে। এ ধরনের রোগের কথা আগে শুনিনি। চিকিৎসক দেখানোর পর রোগটির নাম জানতে পারি।

কলাপাড়া প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের সামনে আক্রান্ত একটি মহিষের মালিক মিঠাগঞ্জ ইউপির মজিবুর রহমান বলেন, এন্টিবায়োটিকসহ অন্যান্য ওষুধ বাইরে থেকে কিনতে হলে চড়া দাম দিতে হয়। সরকারিভাবে সাতদিনের ওষুধ পেলে প্রায় সাড়ে ৩০০ টাকা বেঁচে যেত।

পৌর শহরের নাসরিন ডেইরি ফার্মের মালিক নাসরিন জানান, তার খামারে ৩০টি গরুর মধ্যে ১৪টি গরুই মারাত্বকভাবে ল্যাম্পি স্কিন ডিজিজে আক্রান্ত।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ড. মো. হাববিবুর রহমান বলেন, আফ্রিকা মহাদেশ থেকে বাংলাদেশে প্রথম ল্যাম্পি স্কিন ডিডিজের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। ফলে অনেক কৃষক রোগটি সম্পর্কে জানেন না। রোগটির ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর পশুর শরীরের মাংস খসে পড়তে পারে। এমনটি পশুর মৃত্যু হতে পারে।

তিনি আরো বলেন, এ রোগের লক্ষণগুলো হলো- প্রথমে পশুর শরীরে জ্বর আসা, পর্যায়ক্রমে বিশেষ যেকোনো একটি অঙ্গ ফুলে যাওয়া ও ফোসকা পড়ে মাংস খসে পড়া। একটি পূর্ণবয়স্ক আক্রান্ত গবাদি পশুকে কমপক্ষে সাতদিনের ওষুধের ডোজ দিতে হয়। রোগটির ওষুধ সরকারিভাবে পেলে বাজারের চেয়ে অর্ধেক দামে কৃষকরা কিনতে পারতেন। প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহ এখন সময়ের দাবি বলে জানান তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ