Alexa ১৪ বছরেও চালু হয়নি ২০ শয্যার কার্যক্রম

ঢাকা, বুধবার   ২০ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৫ ১৪২৬,   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

১৪ বছরেও চালু হয়নি ২০ শয্যার কার্যক্রম

আবু মুত্তালিব মতি, আদমদীঘি (বগুড়া) ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১২ ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহারে অবস্থিত ২০ শয্যা হাসপাতাল ১৪ বছরেও চালু হয়নি। বর্তমানে হাসপাতালটির আশেপাশে আগাছা ও মাদকসেবীদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে। 

কবে থেকে হাসপাতালটি চালু হবে তারও কোনো নির্দিষ্ট সময়সূচি নেই কর্তৃপক্ষের কাছে। হাসপাতালটি চালু না হওয়ায় স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন এলাকাবাসী।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি একটি হাসপাতাল নির্মাণ করা। এই দাবির প্রেক্ষিতে ২০০৫ সালে সি.এম.এম.ইউ এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে ও তত্ত্বাবধানে প্রায় তিন কোটি ৩৩ লাখ ১২ হাজার টাকা ব্যয়ে সান্তাহার শহরের রথবাড়ি এলাকায় ২০ শয্যার একটি হাসপাতাল নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এই হাসপাতালটির প্রায় ৮০ ভাগ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর হঠাৎ বাঁকি অংশের কাজ বন্ধ হয়ে যায়।

এমতাবস্থায় ২০০৬ সালের ২২ অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে হাসপাতালটি উদ্বোধন করা হয়। এরপর দীর্ঘ ১৪ বছর হয়ে গেলেও চালু হয়নি হাসপাতালটি। বর্তমানে হাসপাতালটির রক্ষণাবেক্ষণ না থাকায় আশেপাশে আগাছায় পূর্ণ হয়ে গেছে।

অভিযোগ রয়েছে, কর্তৃপক্ষের নজর না থাকায় হাসপাতাল এলাকা পরিণত হয়েছে মাদকসেবীদের আখড়া হিসেবে। যেখানে রোগীদের সেবা পাওয়ার কথা সেখানে চলে মাদক ও স্কুল-কলেজছাত্রদের আড্ডা। 

হাসপাতালটির বাঁকি অংশের নির্মাণ কাজ শেষে চিকিৎসা-সেবা কার্যক্রম দ্রুত চালু করার জন্য দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। 

আদমদীঘি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবেশ পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শহিদুল্লাহ দেওয়ান জানান, একটি পৌরসভা(সান্তাহার) ও ছয় ইউপি নিয়ে গঠিত আদমদীঘি উপজেলা। এই উপজেলা সদরে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট একটি হাসপাতাল রয়েছে। সেখানে উপজেলাবাসীসহ আশেপাশের শতশত রোগী প্রতিদিন চিকিৎসা-সেবা নিচ্ছেন। সান্তাহার রথবাড়িতে অবস্থিত ২০ শয্যা হাসপাতালটি নির্মাণ কাজ অসমাপ্ত থাকায় এখনো হস্তান্তর করা হয়নি। যার কারণে এখনই চালু করা সম্ভব হচ্ছে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম