১৪ দিনে পুরো পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করল করোনাভাইরাস

ঢাকা, শনিবার   ০৬ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ২৪ ১৪২৭,   ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

১৪ দিনে পুরো পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করল করোনাভাইরাস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:২৫ ২ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১৮:০৬ ৫ এপ্রিল ২০২০

আলফ্রেদো বারতুচ্চি

আলফ্রেদো বারতুচ্চি

স্ত্রী-সন্তানদের হৈ চৈ আর হাসিখুশিতে আনন্দে ভরে থাকত বাড়ি। সব নিয়ে সুখের সংসার করছিলেন আলফ্রেদো বারতুচ্চি। কিন্তু ১৪ দিনেই করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে পুরো পরিবার নিশ্চিহ্ন। বাড়ির সবাই আজ পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন।

মর্মান্তিক এমন ঘটনা ঘটেছে ইতালি লোম্বার্দির ভোঘেরা শহরে। এই শহরকে করোনা সংক্রমণের হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ২৭ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৮৬ বছর বয়সী আলফ্রেদোর মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুর মাধ্যমে পরিবারের দুঃস্বপ্নের শুরু। এর কয়েকদিন পরেই করোনাভাইরাস আক্রান্ত দুই ছেলে দানিয়েল ও ক্লদিও-এর মৃত্যু হয়। তখন মা করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর মুখে আইসিইউতে ছিলেন। কিন্তু ১ এপ্রিল পরিবারের শেষ সদস্য ৭৭ বছর বয়সী অ্যাঞ্জেলাকে মৃত্যুর সঙ্গে আলিঙ্গন করায় করোনাভাইরাস। এর আগে একই হাসপাতালে স্বামী-সন্তানসহ অ্যাঞ্জেলা ভর্তি ছিলেন।

ইতালির স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, পরিবারের সবাই জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

স্থানীয় বাসিন্দা আন্তোনিও রিকার্দি বলেন, মাত্র ১৪ দিনে পুরো একটি প্রজন্ম ধ্বংস হয়ে গেছে। যা কখনো স্থানীয়রা দেখেনি। এ খবর শুনে সবার চোখে পানি চলে এসেছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ইতালিতে ঘটেছে। এর মধ্যে দেশটির করোনা সংক্রমণের হটস্পট লোম্বার্দিতে মৃত্যুর ঘটনা বেশি দেখা যাচ্ছে।

ওয়াল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, ইতালিতে এক লাখ ১০ হাজার ৫৭৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৩ হাজার ১৫৫ জন। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৬ হাজার ৮৪৭ জন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/