১১ হাজার টিলার বিস্তৃত অঞ্চলটিই প্রাচীন বিশ্বের বৃহত্তম কবরস্থান!
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=191895 LIMIT 1

ঢাকা, বুধবার   ১২ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৯ ১৪২৭,   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

১১ হাজার টিলার বিস্তৃত অঞ্চলটিই প্রাচীন বিশ্বের বৃহত্তম কবরস্থান!

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১২ ৪ জুলাই ২০২০  

১১ হাজার টিলা রয়েছে কবরস্থানটিতে

১১ হাজার টিলা রয়েছে কবরস্থানটিতে

বাহারাইনের পুরো দেশ জুড়েই সমাধি টিলা আছে। কেউ বাহারাইনে গেলে অন্তত একটি হলেও সমাধি টিলা দেখতে পাবেন। এগুলো শঙ্কু পাহাড়ের মতো দেখতে। সাধারণত বেশ কিছু টিলা পাশাপাশি দেখা যায়। আবার কয়েকশ টিলাও একসঙ্গে দেখা যায়। 

এই সমাধি টিলাগুলো দিলমুন সভ্যতার সময়কার। যারা খ্রিষ্টপূর্ব তৃতীয় সহস্রাব্দে আরবের প্রাচীন সেমেটিক ভাষাভাষী সংস্কৃতির জাতিগোষ্ঠী ছিল। ঐতিহাসিক প্রমাণ থেকে জানা যায়, দিলমুন সভ্যতা পারস্য উপসাগর, মেসোপটেমিয়া এবং সিন্ধু উপত্যকার সভ্যতার মধ্যে বাণিজ্য পথে অবস্থিত ছিল। 

এই সভ্যতা প্রায় দুই হাজার বছরেরও বেশি সময় ধরে একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্র ছিল। বাহরাইনের মূল ভূখণ্ডের উত্তর অঞ্চলে বেশিরভাগ সমাধি টিলা অবস্থিত। দক্ষিণ অঞ্চল মূলত বেলে মরুভূমির মতো। টিলার উপরের এই সমাধিস্থলগুলো একসময় বিস্তৃত অঞ্চল জুড়ে ছিল। বেশ কিছু সমাধিস্থল কয়েক বর্গকিলোমিটার অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত ছিল।

 সমাধিগুলো সিলিন্ড্রিকাল ছোট টাওয়ারের মতো ছিলসমভূমি থেকে উঁচু শক্ত পাথুরে স্থানে সমাধিস্থলগুলো একে একে গড়ে ওঠে। এগুলো প্রাচীন বিশ্বের বৃহত্তম কবরস্থানগুলোর অন্যতম।প্রত্নতত্ত্ববিদরা অনুমান করেছেন, এক সময় বাহরাইন জুড়ে সাড়ে তিন লাখ টিলার সমাধি ছিল। এগুলো টিলা হিসেবে অবিহিত করা হলেও সমাধিগুলো সিলিন্ড্রিকাল ছোট টাওয়ারের মতো ছিল। 

টিলা সমাধিস্থলে রাজকীয় সমাধিও ছিল বলে প্রত্নতত্ত্ববিদরা প্রমাণ পেয়েছেন। যেগুলো ছিল দ্বিতল সিপুলক্রাল টাওয়ার। রাজকীয় সমাধিগুলোর মৃতদেহ রাখার স্থান ছিল তুলনামূলকভাবে বড়। একটি টিলাতে সাধারণত একটি মৃতদেহ সামহিত করা হত। তবে কয়েকটি মৃতদেহ রাখা সমাধি টিলাও রয়েছে এই সমাধি স্থানে। 

টিলায় নারী পুরুষ উভয়ের মৃত দেহই সমাহিত করা হত। অঞ্চল ভেদে টিলা সমাধিগুলোর আকার এবং ধরণের ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায়। 
১৮৮৯ সালে ব্রিটিশ আবিষ্কারক জে থিওডোর বেন্ট এবং তার স্ত্রী মিসেস বেন্ট এই অঞ্চলের কয়েকটি টিলা খনন করেছিলেন। 

মিসেস বেন্টের ডায়েরি থেকে জানা যায়, তারা সেখানে কিছু হাতির দাঁত, কাঠ কয়লা, উট পাখির ডিমের অংশ প্রভৃতি নিদর্শন পান। যেগুলো বর্তমানে লন্ডনের ব্রিটিশ মিউজিয়ামে সংরক্ষিত আছে। ১৯৫০ এর দশকে একদল ডেনিশ প্রত্নতত্ত্ববিদ বাহরাইনের ব্রোঞ্জযুগের রাজধানী কাল’আত এর কিছু টিলা খনন করেছিল। তারা সেখানে প্রায় চার হাজার বছরের পুরাতন বেশ কিছু নিদর্শন আবিষ্কার করেছিলেন।

 বাহরাইন জুড়ে সাড়ে তিন লাখ টিলার সমাধি ছিলপ্রাচীন দিলমুন সভ্যতার টিলা সমাধির প্রথম দিকের সুনির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করা যায়নি। তবে গবেষকরা মত প্রকাশ করেছেন, দিলমুন সভ্যতার প্রথম স্তরে এগুলোর সূচনা হয়েছিল। প্রায় ৪৫০ বছর স্থায়ী এই সভ্যতার প্রাথমিক স্তর। প্রত্নতত্ত্ববিদদের মতে, খ্রিষ্টপূর্ব ২২০০ অব্দ থেকে ১৭৫০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল এই সময়টা। 

রাজকীয় সমাধিগুলো থেকে সে সময়ের অনেক কিছুই জানা যায়। অনেক সমাধি থেকে মাটির তৈরি বিভিন্ন বস্তু, পাথরের সিল, হাতির দাঁতের বিভিন্ন বস্তু, পাথরের জার এবং তামার অস্ত্র পাওয়া গিয়েছে। মৃতদেহের সঙ্গে এগুলো নুড়ি এবং পাথর দিয়ে বিউরাল চেম্বারে আঁটকে দেওয়া হয়েছিল। 

গত শতাব্দীর মাঝামাঝি সময় থেকে প্রায় ৯০ শতাংশ টিলার সমাধিস্থল বিভিন্নভাবে দখল হয়ে হয়েছে। ১৯৬০ সাল থেকে ২০১০ সালের মধ্যে এই অঞ্চলের জনসংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে প্রাচীন সমাধিস্থলগুলো আবাসন, মাহসড়ক এবং অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণের জন্য ধ্বংস করা হয়েছে। ক্রমাগত স্থান দখল হওয়ার কারণে প্রাচীন সমাধিস্তম্ভগুলোর অস্তিত্ব বিলুপ্ত হওয়ার উপক্রম হয়।

জায়গাটি এখন ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে মর্যাদা পেয়েছেসে কারণেই বাহরাইনের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় ২০১৬ সালে প্রাচীন দিলমুন সভ্যতার টিলা সমাধিগুলো ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে মর্যাদা দেয়ার আবেদন করে। ইউনেস্কো ২০১৯ সালে ২০টি সমাধিস্থল ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে তালিকাভুক্ত করে। এই সমাধিস্থলগুলোতে সামগ্রিকভাবে ১১ হাজারেরও বেশি টিলা সমাধি রয়েছে।  

সূত্র: অ্যামিউজিংপ্লানেট 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস