হোস পাইপ খুলে ট্রেন থামিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাতরা

ঢাকা, সোমবার   ২৪ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ১৯ শাওয়াল ১৪৪০

হোস পাইপ খুলে ট্রেন থামিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাতরা

ফেনী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২২ ১৩ জুন ২০১৯  

ফেনীর মুহুরীগঞ্জ রেলসেতুর কাছে চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনে ডাকাতি করে তিনটি বগির ছাদের হোস পাইপ খুলে ট্রেন থামিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাত দল। বাংলাদেশ রেলওয়ে পুলিশের ডিআইজি মো. শাসসুদ্দিন শামস এনডিসির নেতৃত্বে ৫ সদস্যের তদন্ত দলটি ফেনী রেল স্টেশন, কালীদহ স্টেশন, মুহুরীগঞ্জ রেল স্টেশন ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে ফেনী রেলওয়ে স্টেশনে সাংবাদিকদের একথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম রেলওয়ে জিআরপি এসপি নওরোজ হাসান তালুকদার, লাকসাম রেলওয়ে পরিদর্শক নাজিম উদ্দিন, ফেনী সদর সার্কেল ঐক্য সিং, ফেনীর রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার মাহবুবুর রহমান, ফেনী জিআরপি পুলিশ উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম।

তিনি আরো বলেন, ঘটনার রাতে কিছু কিছু যাত্রী টিকিট কেটে ছাদে উঠে যায়, ফেনী স্টেশন পার হওয়ার পর ২০ মিনিট দূরত্বে যাত্রী বেশি ১০/১২ জনের ডাকাত দল ছাদের ঈদ ফেরত যাত্রীদের উপর চড়াও হয়। তাদের মারধর ও ছুরিকাহত করে মোবাইল ফোন, নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে যায়। এসময় ডাকাতরা তিনটি বগির হোস পাইপ খুলে ট্রেন থামিয়ে মুহুরীগঞ্জ রেলসেতুর কাছে পালিয়ে যায়। পরে রেলের কর্মচারীরা হোস পাইপ মেরামত করে দ্রুত ট্রেনটিকে সীতাকুণ্ড স্টেশনে নিয়ে যায়।

সেখানে আহতদের উদ্ধার করে সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার খবর পেয়ে রেলওয়ে চট্টগ্রামের এসপি ঘটনাস্থলের আসেন। আমরা আজকে সকালে ঘটনাস্থলে এসেছি ডাকাতির সত্যতা পেয়েছি। এটি লাকসাম থানার মধ্যে পড়েছে। ওই থানায় ডাকাতি মামলা হয়েছে।

বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ফেনীর মুহুরীগঞ্জ এলাকায় পৌঁছালে ডাকাতির কবলে পড়ে। এসময় ডাকাতে দল ট্রেনের তিনটি বগির ছাদ থেকে যাত্রীদের মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। পড়ে যাত্রীদের চিৎকারে ডাকাতরা ট্রেন থামিয়ে মুহুরীগঞ্জ রেল স্টেশন এলাকা থেকে পালিয়ে যায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম