Alexa হুমকির মুখে হাওরের পাকা ফসল

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৫ ১৪২৬,   ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

হুমকির মুখে হাওরের পাকা ফসল

 প্রকাশিত: ২০:২৭ ২৭ এপ্রিল ২০১৮   আপডেট: ২০:২৮ ২৭ এপ্রিল ২০১৮

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ভারতের আসাম ও মেঘালয়সহ সীমান্ত এলাকাগুলোতে ২৯ এপ্রিল থেকে টানা ৫দিন বর্ষণের পূর্বাভাস দিয়েছে সেই দেশের আবহাওয়া দফতর। বর্ষণের ফলে বাংলাদেশের সিলেট, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ শেরপুর ও নেত্রকোনা জেলার হাওরে প্রবল বেগে প্রবেশ করবে এই পানি।

হবিগঞ্জের হাওরগুলোর সঙ্গে ওই এলাকার হাওরের সরাসরি সম্পৃক্ততা রয়েছে। তাই হবিগঞ্জের বিস্তীর্ণ হাওরের নিম্নাঞ্চলের এলাকার পাকা ধান তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তাই দ্রুত পাকা ধান কেটে ফেলার জন্য পরামর্শ দিয়েছে হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড।

হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এলএম সৌকত জানান, ভারতীয় আবহাওয়া দফতর পূর্বাভাস দিয়েছে, আসাম ও মেঘালয় রাজ্যে ২৯ এপ্রিল থেকে ৩ মে পর্যন্ত ১৫০-২০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হবে। যেহেতু ওই এলাকাগুলো বাংলাদেশ থেকে উঁচু স্থানে অবস্থিত তাই পানি বাংলাদেশের বিভিন্ন নদী দিয়ে হাওরে প্রবেশ করবে। এতে করে নিম্ন এলাকাগুলো জলমগ্ন হয়ে পড়বে। তাই কৃষকদের দ্রুত ৮০ শতাংশ পর্যন্ত পাকা ধান কেটে ফেলার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

হবিগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান জানান, জেলায় এবার বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল এক লাখ ১৫ হাজার ৭৪ হেক্টর জমি। কিন্তু এ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে এক লাখ ২১ হাজার ৪৩০ হেক্টর জমি চাষ করা হয়েছে। বোরো চাষে এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন অনেক সাফল্যের।

জিয়াউর রহমান বলেন, এ পর্যন্ত হাওর পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, ধানের ফলন ভালো হয়েছে। এরইমধ্যে হাওর এলাকার ৫০ শতাংশ ধান কাটা শেষ হয়েছে। কৃষকদের দ্রুত ধান কাটার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কারণ ভারতে বৃষ্টি হওয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশেও বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আজ/এমআরকে