হাসপাতাল হচ্ছে, কিন্তু ডাক্তার পাচ্ছে না রোগীরা

.ঢাকা, বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১০ ১৪২৬,   ১৮ শা'বান ১৪৪০

হাসপাতাল হচ্ছে, কিন্তু ডাক্তার পাচ্ছে না রোগীরা

 প্রকাশিত: ১৮:২১ ৮ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ১৮:২৯ ৮ অক্টোবর ২০১৮

গণভবন থেকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

গণভবন থেকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনা বলেন, উপজেলাগুলোতে ডাক্তার না থাকা দুঃখজনক। তিনি বলেন, প্রতিটি জেলায় জনসংখ্যার ভিত্তিতে হাসপাতালগুলোতে শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি করা হচ্ছে। অথচ এমন অনেক জেলা রয়েছে, যেখানে অপারেশন থিয়েটার আছে কিন্তু ডাক্তার নেই, অ্যানেসথেসিয়া দেয়ার জন্য অ্যানেসথেসিস্ট নেই। সরকার হাসপাতাল করছে, কিন্তু ডাক্তার থাকছে না। 

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের প্রতিটি বিভাগের মেডিকেল কলেজগুলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করা হবে। ওই বিভাগের বাকি মেডিকেল কলেজগুলো ওই বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অ্যাফিলিয়েটেড হবে। যাতে তাদের পড়াশুনার কোয়ালিটি পর্যবেক্ষণ করা যায়।

সোমবার বিকেলে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বিগত ১০ বছর তাঁর সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে জানান, ভবিষ্যতে পায়রাবন্দর পর্যন্ত রেললাইন করা হবে। সেই সঙ্গে দেশের দ্বিতীয় নিউক্লিয় পাওয়ার প্ল্যান্টও বরিশালে করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব নজীবুর রহমানের সঞ্চালনায় গণভবনে মন্ত্রী, এমপি, সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এরপর প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বরিশালের জেলা প্রশাসক, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের শিক্ষকদের সঙ্গে মত বিনিময় করেন। এসময় মেডিকেল কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরা হয়।

ভিডিও কনফারেন্সে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা শিক্ষকদের জন্য বহুতল ভবন করে ফ্ল্যাট নির্মাণ করে দেব। মেয়েদের জন্য ছাত্রীনিবাস করবো। কর্মচারীদের, নার্সদের থাকার জায়গা যাতে হয় সেজন্য আপনারা প্রজেক্ট দেন আমরা পাস করে দেব। আর ডাক্তার স্বল্পতা বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী।

ডেইলি বাংলাদেশ/এলেকে