Alexa হারিয়ে যাওয়া প্রাচীন শহর ‘মহেন্দ্রপর্বত’

ঢাকা, রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২ ১৪২৬,   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

হারিয়ে যাওয়া প্রাচীন শহর ‘মহেন্দ্রপর্বত’

সাহিদা আফরিন মিথিলা ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:১৪ ২৩ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২১:২০ ২৩ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

কালের অনন্ত স্রোতে অনেক সময় অনেক কিছুই হারিয়ে যায়। ইতিহাসে অনেক শহর, সভ্যতার কথা উল্লেখ থাকে যার কোনো স্মৃতিচিহ্ন অনেক সময় পাওয়া যায়না। তবে অনেক বন-জঙ্গলের মাঝেই প্রাচীন মানবসভ্যতার বিভিন্ন চিহ্ন ঢাকা পড়ে আছে বলে অনেক ইতিহাসবিদ দাবি করেছেন। তাদের তথ্য অনুযায়ী অনেক সময় অনুসন্ধান করা  হয় এসব মানবসভ্যতার অস্তিত্ব। তেমনই একটি তথ্যের ভিত্তিতে একটি প্রাচীন শহরের জন্য অনুসন্ধান চালানো হয় কম্বোডিয়ার একটি জঙ্গলে। 

কম্বোডিয়ার জঙ্গলে শহরের অস্তিত্ব নিয়ে বিরোধ তৈরী হয়ে যায় ইতিহাসবিদদের মাঝে। কারণ ইতিহাসে একটি শহরের নাম উল্লেখ থাকলেও তখনও খোঁজ মেলেনি শহরটির। অবশেষে জঙ্গলের মাঝে শহরটির ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যায়। 

মঙ্গলবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী গবেষকরা কম্বোডিয়ার অধরা প্রাচীন ‘হারানো শহর’ শনাক্ত করেছেন। শহরটির নাম ‘মহেন্দ্রপর্বত’। মহেন্দ্র অর্থ দেবরাজ ইন্দ্রের পর্বত তাই অনেকে একে 'ইন্দ্র পর্বত' নামেও চেনে। 

২০১৩ সালে শহরটির অস্তিত্বের প্রথম প্রমাণ পায় ইতিহাসবিদরা। জঙ্গলের মাঝে খোদাই করা কিছু পাথর পেয়েছিলেন তারা। ইতিহাসবিদরা বলেছেন এই শহরটি খমের সাম্রাজ্যের রাজধানী ছিল। 

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিস্তীর্ণ কিছু এলাকা এই সাম্রাজ্যের অধীনে ছিল। বিশাল সম্পত্তি এবং ক্ষমতার অধিকারী ছিল এই সাম্রাজ্য। ইতিহাসবিদদের মতে, খমের সাম্রাজ্যের প্রথম রাজধানীগুলোর মধ্যে মহেন্দ্রপর্বত অন্যতম ছিল। তবে এর স্থায়ীত্বকাল দীর্ঘ ছিলনা। এই শহরটি খ্রিষ্টীয় নবম থেকে পঞ্চদশ শতাব্দী পর্যন্ত টিকে ছিল।

খমের সাম্রাজ্য ধ্বংসের পর এই অঞ্চল খমের রুজ নেতারা দখল করে নেয়। ১৯৭৫-১৯৭৯ সাল পর্যন্ত তারা তাদের দখলে রাখে এটি। কমিউনিস্ট খমের রুজ নেতারা জঙ্গলের বিভিন্ন জায়গায় ল্যান্ডমাইন বিছিয়ে রাখে। ফলে, খোঁজ পাওয়া সত্ত্বেও হেঁটে জঙ্গলের ভিতর অনুসন্ধান করতে পারেনি ইতিহাসবিদরা। জঙ্গলটি বেশ ঘন থাকাও এর একটি কারণ ছিল। 

বিজ্ঞানীদের একটি আন্তর্জাতিক দল মহেন্দ্রপর্বত মানচিত্রের জরিপ করার জন্য বায়বীয় এবং স্থল-ভিত্তিক লেজার স্ক্যান করেছে। এরপরেই খোঁজ মিলে মহেন্দ্রপর্বতের। তখন এটিও জানা যায় যে, সিয়েম রিপ থেকে ৪৮ কিলোমিটার উত্তরে ফেনন কুলেন পাহাড়ের মাঝে শহরটি অবস্থিত। অনুসন্ধানকালে শহরটিতে বিভিন্ন প্রাসাদ,মন্দির এবং অন্যান্য কিছু স্থাপনার খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। 

একটা সময়ে এই শহরটিতে হাজারো লোকের বসবাস ছিল। অন্য শহরগুলোর ন্যায় এখানেও ছিল মানুষের কোলাহল। কালের পরিক্রমায় শহরটিতে বাসিন্দাদের পরিমাণ কমতে থাকে। একসময় শহরটি জনশূন্য হয়ে যায়। এর কারণ হিসেবে ধারণা করা হয় যে, শহরটির চারদিক পাহাড়ে ঘেরা। এখানে শত্রু থেকে রেহাই পাওয়া সহজ হলেও স্থায়ীভাবে বসবাস করার জন্য জায়গাটি উন্নত ছিলনা।

জনশূন্য হয়ে যাওয়ার পর শতকের পর শতক মহেন্দ্রপর্বত সম্পর্কে কারো ধারণা ছিলনা। ইতিহাসবিদদের তথ্যমতে এবং গবেষকদের সাহায্যে শহরটির সন্ধান করা সম্ভব হয়েছে। দীর্ঘ একটি সময়কাল শহরটির কোনো অস্তিত্ব না থাকায় একে ‘হারানো শহর’ নামে সম্বোন্ধন করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী