হাতির ভয়ে ১৩ বছর গাছের ডালে যুবক

ঢাকা, রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৩ ১৪২৬,   ১২ শা'বান ১৪৪১

Akash

হাতির ভয়ে ১৩ বছর গাছের ডালে যুবক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৩৫ ২৮ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৫:৫০ ২৮ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

রাত নামলেই ভয়ংকর বন্যপ্রাণী হাতির আক্রমণে হুলুস্থুল শুরু হয় পুরো এলাকায়। তাই সবাই আতঙ্কের মধ্যে রাত কাটান। যার কপাল খারাপ তার ঘরকে উড়িয়ে দেয় বন্য হাতিরা। তাই মাটিতে না থাকার সিদ্ধান্ত নেন ভারতের আসাম রাজ্যের চৌকি বনাঞ্চল এলাকার বিজয় ব্রহ্ম নামের এক যুবক। এরইমধ্যে ১৪ বছর গাছের ডালের সঙ্গে বানানো ছোট্ট কুটিরে জীবনযাপন করছেন তিনি। এদিকে হাতির আক্রমণ থেকে বাঁচতে সমাজ বিচ্ছিন্ন বিজয়কে অনেকে ‘বনমানুষ’ হিসেবে অভিহিত করেন।

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে বিজয় জানান, ছোট বেলায় এতিম হন তিনি। এরপর বাড়ি বাড়ি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। কাজ করে জমানো কিছু অর্থে ঘর বানানোর সিদ্বান্ত নেন তিনি। তবে হঠাৎ চিন্তায় পরিবর্তন হয় তার। কারণ এলাকায় বন্য হাতির আক্রমণে তার আগের কুটিরটি কয়েকবার ভেঙে যায়। এছাড়া রাতে যেহেতু হাতির ভয়ে গাছেই উঠতে হয়, তাই জমানো অর্থ খরচ করে ঘর বানিয়ে কি লাভ! 

তিনি আরো জানান, বারবার হাতির আক্রমণের ফলে গাছে থাকার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। কারণ তিনি একা ছিলেন। এরপর প্রথমে চৌকি বনাঞ্চলের ভেতর কাঠ, তক্তা জোগাড় করে গাছের উপর ছোট্ট ঘর বানিয়ে ফেলেন তিনি।

বিজয় জানান, ওই বনাঞ্চলের ভেতর ছয় বছর থাকার সময় অন্যের বাড়িতে কাজ ছেড়ে দেন। জঙ্গলে যা পেতেন, তাই খেতেন। এতে তিনি সমাজ বিচ্ছিন্ন হন। এমনকি মানুষের সংস্পর্শ থেকে দূরে থাকতে শুরু করেন। পরে পাগলাদিয়া নদীর পাড়ের খৈরানিতে নতুন একটি গাছে বাসা বেঁধে সাত বছর ধরে বাস করছেন তিনি। জঙ্গল থেকে নদীর পাড়ে থাকা অবস্থায় তিনি জঙ্গল থেকে বনের আলু, কচু, শাক, নদীর মাছ, কাঁকড়া খেয়ে জীবন ধারণ করছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ