Alexa হাই হিল পরেন? মেরুদণ্ডের সমস্যা থেকে বাঁচুন এই উপায়ে

ঢাকা, শনিবার   ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২৯ ১৪২৬,   ১৬ রবিউস সানি ১৪৪১

হাই হিল পরেন? মেরুদণ্ডের সমস্যা থেকে বাঁচুন এই উপায়ে

কানিছ সুলতানা কেয়া ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৪০ ২ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৭:৪০ ২ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বহু যুগ আগে থেকেই ফ্যাশনে হাই হিল বা উঁচু জুতা পরার প্রচলন রয়েছে। সিনেমার নায়িকা ও র‌্যাম্প মডেলরা থেকে শুরু করে সাধারণ নারীরাও হাই হিলে আসক্ত। তবে জানেন কি? নিয়মিত হাই হিল পড়া কতটা ক্ষতিকর? 

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় প্রমাণ মিলেছে যে, নিয়মিত হাই হিল জুতো পরলে হাঁটুতে চাপ পড়ে। স্বাভাবিকের চেয়ে মাত্র ৫ সেন্টিমিটার উঁচু হিলের জুতো পরলেই হাঁটুতে অন্তত ২৩ শতাংশ চাপ বেড়ে যায়। দীর্ঘদিন হাঁটুতে অতিরিক্ত চাপ পড়ার কারণে অনেকের অস্টিওআর্থ্রাইটিস হতে পারে। এজন্য পুরুষের চেয়ে মেয়েদের এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা দ্বিগুণেরও বেশি থাকে।   

এছাড়াও পায়ের রগে টান লাগা, কাফ মাসল শক্ত হওয়া, পায়ের গোড়ালি ব্যথা, পা মচকানো, পায়ের আঙুলে ব্যথা, মাংসপেশি বা রগ শক্ত হয়ে যাওয়া, হাঁটু ও কোমর ব্যথাসহ আপনার চলাফেরার ভারসাম্য নষ্ট হতে পারে। শরীরের ভারসাম্য বজায় রাখতে গিয়ে মেরুদণ্ডের ওপর অতিরিক্ত চাপ থেকে ঘাড় ব্যথাও হতে পারে।পায়ে হাই হিল থাকায় মেরুদণ্ডের স্বাভাবিক অবস্থান বদলে যায়। ফলে ঘাড়ে এর প্রভাব পড়ে।  

তাই দীর্ঘদিন ধরে উঁচু হিল পরা থেকে বিরত থাকুন। সেক্ষেত্রে নরম আরামদায়ক স্লিপার জুতা পরতে পারেন। তবে মাঝে মধ্যে অনুষ্ঠান বা কোনো উৎসবে এক দু’দিন উঁচু হিলের জুতা পরতেই পারেন। ইতোমধ্যে যদি এ ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত হয়েই থাকেন তবে এই কাজগুলো করতে পারেন-
  
> কুসুম গরম পানিতে সামান্য ফিটকিরি মিশিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট পা ভিজিয়ে রাখতে পারেন। আবার ক্লান্তি দূর করতেও এটি করতে পারেন। 

> পায়ের যে স্থানে ব্যথা হচ্ছে সেখানে বরফ ম্যাসাজ করতে পারেন। এজন্য কাপড়ের মধ্যে বরফ নিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট ব্যথাযুক্ত স্থানে ম্যাসাজ করুন।

> পায়ের ব্যথা সারাতে ব্যায়াম খুবই কার্যকরী। এজন্য বিছানায় সোজা হয়ে বসে একটি তোয়ালে দিয়ে পায়ের পাতা সামনের দিকে টানুন। এভাবে ৩০ সেকেন্ড ধরে রাখুন। এটি দিনে ২ থেকে ৩ বার করুন। অন্তত ১০ থেকে ১৫ বার করে।  

> এছাড়াও একটি দেয়ালের সামনে বৃদ্ধাঙ্গুলের ওপর ভর করে দাঁড়ান এবং ২০ সেকেন্ড ধরে রাখুন। এটি ১০ থেকে ১৫ বার করে প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বেলা করুন। প্রথমে অল্প ব্যায়াম সময় করুন। ধীরে ধীরে সময় বাড়াতে থাকুন।  

> এভাবে যদি ব্যথা না কমে তবে আপনি একজন ফিজিওথেরাপি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।  

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস