হলুদ সাংবাদিকতা সমাজ ও রাষ্ট্রের ক্ষতি করে: তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৬ ১৪২৬,   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

হলুদ সাংবাদিকতা সমাজ ও রাষ্ট্রের ক্ষতি করে: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৪:২৯ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৪:২৯ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গণমাধ্যমে হলুদ সাংবাদিকতার ব্যাপারে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, এ ব্যাপারে সরকার কাউকে ছাড় দেবে না। হলুদ সাংবাদিকতা সমাজ ও রাষ্ট্রের ক্ষতি করে। সরকারের সঙ্গে সাংবাদিকদেরও হলুদ সাংবাদিকতা বন্ধে সহযোগিতা করতে হবে।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) পক্ষ থেকে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদকে অভিনন্দন জানানোর সময় তিনি এ কথা বলেন। ডিইউজে অফিসে এই অভিনন্দন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন পত্রিকা, অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

এসময় তথ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে ভাল পত্রিকাগুলোকে কিভাবে বাঁচিয়ে রাখা যায় এবং প্রচলিত আইনে কী সুযোগ-সুবিধা দেয়া যায় তা নিয়ে সরকার ভাববে। কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর মতোই সাংবাদিক বান্ধব। তিনি বলেন, অন্য কারো সাথে বৈঠকে বসার আগে আমি সাংবাদিকদের সঙ্গে বসেছি। কারণ এই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার ব্যাপারে আপনাদের যথেষ্ঠ ভূমিকা ছিল। আমি আপনাদের কাছে অনেক ঋণী।

নবম ওয়েজবোর্ড রয়েদাদের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আপনাদের যে কোন অভিযোগ থাকলে আমাদের জানাবেন। সরকার আপনাদের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখবে। আর নবম ওয়েজবোর্ডে না হলেও পরবর্তী বোর্ডের আওতায় আসতে পারে ইলেকট্রনিক মিডিয়া বলে জানান তথ্যমন্ত্রী।

বিএফইউজের সভাপতি মোল্লা জালালের সভাপতিত্বে অভিনন্দন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, বিএফইউজের মহাসচিব শাবান মাহমুদ, ডিইউজের সহ সভাপতি মোজাম্মেল হক, বিএফইউজের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ, ডিইউজের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেন ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।

বিএফইউজের সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, যে সব পত্রিকা মালিকরা ওয়েজবোর্ড রয়েদাদের সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করেন সেখানে কর্মরত সবাই ওয়েজবোর্ড রয়েদাদের সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এটাই স্বাভাকিক। কিন্তু কোন কোন পত্রিকার মালিক সুযোগ-সুবিধা নিয়ে সাংবাদিকদের ওয়েজবোর্ডে বেতন দেন না। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি বলেন, যেহেতু তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ পরিবেশ নিয়ে কাজ করেছেন। তিনি সাংবাদিকদের পরিবেশ সম্পর্কেও ভাল জানেন। তাই কি করতে হবে তিনি ভাল বোঝেন।

বিএফইউজের মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, আগামী ২৮ জানুয়ারির মধ্যে নবম ওয়েজবোর্ড গঠনের গেজেট প্রকাশ করা না হলে তা অনিশ্চিয়তার দিকে ঠেলে দেবে। তাই দ্রুত এ ব্যাপারে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য তথ্যমন্ত্রীকে তিনি অনুরোধ করেন। শাবান মাহমুদ বলেন, সাংবাদিকদের সাহায্য-সহযোগিতা করলে আপনিও আমাদের কাছ থেকে অনুরূপ কিছু পাবেন। আপনি পেশাদার সাংবাদিকদের সার্বিক মঙ্গলকামনায় এগিয়ে আসবেন। সাংবাদিকরা আপনার সাথে থাকবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/সেতু/এস