Alexa হতাশ না হলে সফলতা আসবেই: স্যার রিচার্ড জে রবার্টস

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৮ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

হতাশ না হলে সফলতা আসবেই: স্যার রিচার্ড জে রবার্টস

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৫৩ ৬ মার্চ ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চিকিৎসা বিজ্ঞানে নোবেল বিজয়ী স্যার রিচার্ড জে. রবার্টস বলেছেন, আমার পদার্থ বিজ্ঞানের উপর আগ্রহ ছিল। এ বিষয়ে আমি অনেক পড়ালেখা করেছি। বিভিন্ন দেশে ঘুরেছি। সেখানে বিভিন্ন সমস্যা চিহ্নিত করেছি। এর সমাধান করতে গিয়ে বারবার ব্যর্থ হয়েও আমি হতাশ হয়নি। অবশেষে আমি তাতে সফল হয়েছি। এর অর্জন হিসেবে নোবেল বিজয়ী হতেও সহায়তা করেছে।

তিনি বলেন, জীবনে ফেল করাও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ফেল করলেই সফলতা কাছে চলে আসে।

বুধবার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২তম সমাবর্তনে সমাবর্তন বক্তা হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

স্যার রিচার্ড জে. রবার্টস বলেন, আমাদের জীবনের লক্ষ্যমাত্রা পরিবার থেকে ঠিক করে দেয়া হয়। তাই নিজেদের ইচ্ছা বা স্বপ্ন চাপা পড়ে যায়, সেটিকে আর বিকাশিত করা সম্ভব হয় না। তার দ্বারা নতুন কিছু উদ্ভাবন বা আবিষ্কার হওয়া সম্ভব হয় না। এক ধরনের হতাশা নিয়েই জীবন পার করে দেন। তাই সব শিশু ও তরুণের অন্তরে লুকিয়ে থাকা স্বপ্নকে জাগাতে হবে। তবেই বাংলাদেশে অনেক নোবেল বিজয়ী তৈরি হবে।

শিক্ষার্থীরা অনেক মেধাবী উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর সঙ্গে কাজ করে দেখেছি তারা অনেক মেধাবী, অনেক বড় বড় সমস্যাও তারা সমাধান করতে পারে। তাই আগামী প্রজন্মকে সঠিক শিক্ষা দেয়া সম্ভব হলে তারা বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে নিতে সক্ষম হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তিনি বলেন, আমাদের প্রধান শক্তি তারুণরা, তারাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও জাতির পিতার অবদান পড়াতে হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, অনেক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় দেশকে এগিয়ে নিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। আবার অনেকে আইন অমান্য করে চলছে। বিশ্ববিদ্যালয় শুধু ব্যবসার জন্য চলতে পারে না, সবাইকে আইন মেনে চলতে হবে।

এ সময় জঙ্গি ও মাদকমুক্ত থাকতে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সবার প্রতি আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আজকের (২২তম) সমাবর্তন অনুষ্ঠানে মোট ৩ হাজার ৪৮৬ জন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থীর হাতে সনদ তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে মেধাবী কৃতী শিক্ষার্থী হিসেবে দুই জনকে চ্যান্সেলর এবং নয় জনকে ভাইস চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্ট্রি বোর্ডের সদস্যরা, উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম, উপ-উপচার্য (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক গিয়াস ইউ আহসান, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে