হঠাৎ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়ার হিড়িক

ঢাকা, বুধবার   ২৭ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৭,   ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

হঠাৎ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়ার হিড়িক

ববি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৫৬ ১০ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১৫:৪৭ ১০ এপ্রিল ২০২০

মাথা ন্যাড়ার বিষয়টি অনেকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছে

মাথা ন্যাড়ার বিষয়টি অনেকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছে

করোনার ছুটিতে থাকা বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থীদের মাঝে হঠাৎ মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক পড়ে গেছে। মাথা ন্যাড়ার এই ট্রেন্ড থেকে বাদ যায়নি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তারাও।

মাথা ন্যাড়া করার বিষয়টি কেউ কেউ চ্যালেঞ্জ হিসেবেও নিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। প্রতিদিন শিক্ষার্থীদের কাউকে না কাউকে মাথা ন্যাড়া করে ফেসবুকে ছবি আপলোড করতে দেখা যাচ্ছে। পোস্টের সঙ্গে মজার ক্যাপশনও জুড়ে দিচ্ছেন কেউ কেউ।

মাথা ন্যাড়া করলে বন্ধু-বান্ধব একটু বেশিই দুষ্টামি করে। কেউ তো রীতিমতো মাথার উপর তবলা বাজাতে চায়। অনেক সময় বন্ধুরা ঠাট্টা করে। সারাক্ষণ বাসার মধ্যে থাকতে হচ্ছে, যার ফলে বন্ধুদের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ হচ্ছে না। বন্ধুদের থেকে সম্পূর্ণ নিরাপদ দূরত্ব থাকার কারণেও অনেকে বেছে নিয়েছেন এই সময়টাকে।

ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরান্স সেলের সহকারী পরিচালক আরাফাত শাহরিয়ার ফেসবুকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে লেখেন, এই মর্মে ঘোষণা করছি যে, ১০ হাজার কমেন্ট হলে ন্যাড়া হবো। কে আছ জোয়ান, হও আগুয়ান হাঁকিছে ভবিষ্যৎ।

ফেসবুকের বন্ধুরা সাড়া দিয়ে ১০ হাজার কমেন্ট করে ফেললেন। কি আর করার, ন্যাড়া না হয়ে যে উপায় অন্ত নেই।

আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ফারহান ইসলাম রুবেল ফেসবুকে মাথা ন্যাড়ার গ্রুপ ছবি পোস্ট করে মজা করে লিখেছেন, বাবুল বক্সি গতরাতে স্বপ্নে দেখেছে- যে ব্যক্তি মাথা ন্যাড়া করবে সে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হবে না। তাই বক্সির অনুসারীরা এরইমধ্যে ন্যাড়া হয়েছে, আপনারা শুরু করেন।

মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম লিখেছেন, কোন চ্যালেঞ্জ না। রাতে স্বপ্ন দেখছিলাম টাক করলে করোনার ভয় থাকবে না। তাই সকালে এই সিদ্ধান্ত নিলাম।

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী এনামুল হক মনির পারিবারিক গ্রুপ ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, গ্রামের বাড়িতে হোম কোয়ারেনটাইনে হঠাৎ ঘুম থেকে উঠে দেখি মাথায় কিছু একটা হয়েছে। আয়নার সামনে গিয়ে দেখি বিশ্ব টাক দিবস।

সাবার মধ্যে এমন মাথা ন্যাড়ার হিড়িক পড়ে গেল কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী ইমরুল কায়েস ফারুক বলেন, বর্তমানে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে ফলে দেখা যায় মাথা ঘামতে থাকে। এতে করে ঠান্ডা লেগে যেতে পারে। সচেতনতা থেকেই করা। তাছাড়া টাক করলে চুলের পিছনে অতিরিক্ত সময় অপচয় করার দরকার হয় না। যদিও আমি বড় চুল পছন্দ করি, তারপরও এই গরমে নিজেকে একটু স্বস্তি দিতেই মাথা ন্যাড়া করা।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম