Alexa সড়ক ভেঙে তিন গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৮ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

সড়ক ভেঙে তিন গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

লালমনিরহাট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৭:৫৬ ২৭ জুন ২০১৯   আপডেট: ১২:৪৯ ২৭ জুন ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

লালমনিরহাটে ধরলা নদীর পানি বেড়ে একটি পাকা সড়ক ভেঙে তিন গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

বুধবার বিকেল থেকে জেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ড যৌথভাবে বালুর বস্তা ফেলে মেরামত শুরু করে। বিচ্ছিন্ন হওয়া গ্রামগুলো হলো- সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউপির বোয়ালমারী, শীবেরকুটি ও চর শিবেরকুটি গ্রাম।

চর শীবেরকুটি গ্রামের রফিকুল ইসলাম বলেন, উজানের ঢল আর মঙ্গলবার রাতের ভারী বর্ষণে ধরলার পানি বেড়ে যায়। এতে ধরলা ঘেঁষা কুলাঘাট ইউপির ওয়াবদা বাজার থেকে চর শীরেরকুটি বাইপাস সড়কটির ১২০ ফিট ভেঙে যায়। ওয়াবদা বাজারের পাশে ওই সড়কের ইউড্রেনটির নিচ দিয়ে পানি চুয়ে নামার একপর্যায়ে পুরো অংশ পানির তোড়ে ভেসে যায়। পানির স্রোতে ভেসে যায় ওই অংশের কয়েকটি বড় বড় গাছ। ভেসে যায় একটি মৎস্য প্রজেক্টের লক্ষাধিক টাকার মাছ। বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে তিন গ্রামের প্রায় দেড় হাজার পরিবারের যোগাযোগ ব্যবস্থা।

এসব মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল করতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এবং পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সওজ যৌথভাবে বালুর বস্তা ফেলে ভেঙে যাওয়া অংশ মেরামত শুরু করেছে। তবে বৃহস্পতিবার দুপুরের মধ্যে যোগাযোগ সচল করা হবে বলে দাবি করেছেন কর্মকর্তারা।

তিনি বলেন, ভোরে ইউড্রেনটির নিচ দিয়ে সামান্য পরিমাণে পানি চুয়ে বের হতো। সকাল ১০টার দিকে পুরো ইউড্রেনটি পানির স্রোতে ভেসে যায়। আস্তে আস্তে ভেঙে যায় পাকা সড়কটির প্রায় ১২০ ফিট। বর্তমানে স্থানীয়রা নৌকা বা ভেলায় করে পার হচ্ছেন।

সিদর এসল্যিান্ড জিআর সরোয়ার বলেন, বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ সচল করতে বালুর বস্তা ফেলে মেরামত করা হচ্ছে। বাইরে থেকে ট্রাকে বালু আনতে কিছুটা সময় লাগছে।এরইমধ্যে দুই হাজার বস্তা প্রস্তুত করা হয়েছে। বালুবোঝাই বস্তা দিয়ে আপাতত সচল করা হবে। ভেঙে যাওয়া অংশ বেশ গভীর। তাই একটু বেশি সময় লাগবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর