সড়কে বাঁশ ফেলে শ্রমিকের বেতনের কোটি টাকা ছিনতাই

ঢাকা, বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ১৮ ১৪২৬,   ০৭ শা'বান ১৪৪১

Akash

সড়কে বাঁশ ফেলে শ্রমিকের বেতনের কোটি টাকা ছিনতাই

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:০২ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১০:৩১ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

বরগুনার আমতলী-কুয়াকাটা মহাসড়কে বুধবার সন্ধ্যায় বাঁশ ফেলে পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের শ্রমিকের বেতনের এক কোটি টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় ছিনতাইকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে টাকা বহনকারী প্রাইভেটকারে থাকা দুইজন আহত হয়েছেন। আহত জুনু মিয়া ও তামিমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে প্রাইভেটকারের চালক আবু বক্করকে আটক করা হয়েছে। আহত তামিমের বাড়ি বরিশালে এবং জুনু মিয়ার বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থানার দিকলফাক ইউপিতে।

আরইডব্লিউ, এসইডব্লিউ ও জেপি ট্রেডার্স নামে তিনটি প্রতিষ্ঠান পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক সরবরাহ করে আসছে। ওই তিন কোম্পানির পাঁচ শতাধিক শ্রমিক এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজ করেন। ছিনতাইকারীরা তাদের জানুয়ারি মাসের বেতনের টাকা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।

আহত জুনু মিয়া বলেন, ঘটনার দিন দুপুরে বরিশাল প্রিমিয়ার ব্যাংকের শাখা থেকে কোটি টাকারও বেশি টাকা উঠিয়ে কলাপাড়ার পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ফিরছিলেন শ্রমিক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান জেপি ট্রেডার্স, সালেহ ইঞ্জিনিয়ারিং ও রবিউল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের তিন পরিচালক। এ সময় বিদ্যুৎকেন্দ্রের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এনইপিসি’র বাঙালি কর্মকর্তা তামিমসহ আরো দুজন একই প্রাইভেটকারে ছিলেন। পথে আমতলী মহসড়কের খলিয়ান নামক স্থানে সড়কে দুটি বাঁশ দিয়ে গাড়ির গতিরোধ করে ফেলে ছিনতাইকারীরা। এ সময় ৫-৭টি মোটরসাইকেল থেকে ৮-৯ জন ছিনতাইকারী নেমে গাড়ির ভেতরে প্রবেশ করে। প্রথমে গলায় ছুরি ধরে হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে শুরু করে এবং টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

তিনি আরো বলেন, মারপিটের মধ্যে আমি এবং তামিম ভাই ছিনতাইকারীদের প্রতিরোধ করার চেষ্টা চালাই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের দুজনকে দা দিয়ে (দেশীয় অস্ত্র) কোপাতে শুরু করে এবং টাকা ছিনিয়ে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে পালিয়ে যায়। তামিমের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় কোপের আঘাতে রক্তাক্ত জখম হয়েছে। এছাড়া আমার নিজের কোমরের নিচের দিকে একটি কোপের আঘাতে পাঁচটি সেলাই দিতে হয়েছে। 

আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মনোরঞ্জন মিস্ত্রি এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমতলী-কুয়াকাটা মহাসড়কের খলিয়ান নামক স্থানে এ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।

মনোরঞ্জন মিস্ত্রি বলেন, শ্রমিকদের জানুয়ারি মাসের বেতন দেয়ার জন্য বরিশাল প্রিমিয়ার ব্যাংক থেকে আরইডব্লিউ সাড়ে ১২ লাখ টাকা, এসইডব্লিউ ৩৬ লাখ টাকা ও জেপি ট্রেডার্সের ৫২ লাখ টাকা উঠিয়ে তাদের কর্মচারীরা প্রাইভেটকারে কলাপাড়া উপজেলায় তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে যাচ্ছিলেন। প্রাইভেটকারটি আমতলী-কুয়াকাটা মহাসড়কের টিয়াখালী কলেজ সংলগ্ন স্থানে পৌঁছালে একটি ভ্যানগাড়ি ও বাঁশ ফেলে তাদের গতিরোধ করে। পরে পেছন দিক থেকে ৫-৬টি মোটরসাইকেলে আসা ছিনতাইকারীরা ধারালো রামদা ও দেশি অস্ত্র দিয়ে প্রাইভেটকারের কাচ ভেঙে ভেতরে ঢোকে।

ওসি (তদন্ত) বলেন, এরপর অস্ত্রের মুখে তাদের জিম্মি করে প্রাইভেটকারটি টিয়াখালী কাঁচা সড়কে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গাড়িতে থাকা কোম্পানির হোসাইন, জুয়েল, হুমায়ূন, জুনু মিয়া ও তামিমকে বেধড়ক মারধর করে টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তানভির ও ঝুনু প্রতিরোধ করলে তাদেরকে কুপিয়ে টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ছিনতাই শেষে তারা মোটরসাইকেলে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে চালক আবু বক্করকে গাড়িসহ আটক করা হয়েছে।

বরগুনার এসপি মারুফ হোসেন জানান, ছিনতাইকারীদের আটক এবং টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ