.ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৬ ১৪২৫,   ১৪ রজব ১৪৪০

সড়কই দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ: আবু সায়ীদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৯:৩২ ১ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৯:৪০ ১ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সড়কই দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ। তিনি বলেন, আমাদের দেশের রাস্তাগুলো যথেষ্ট চওড়া নয়। একটা হাইওয়ে কখনো দুই লেন হয় না। 

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে নিসচার (নিরাপদ সড়ক চাই) ২৫ বছর পুর্তিতে সড়ক দুর্ঘটনা বিষয়ক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবু সায়ীদ বলেন, একটা গাড়ি উল্টো দিক থেকে দ্রুত ছুটে আসবে। আরেকটা মাঝখানে ডিভাইডার দিলে দুদিকে আটকে যাবে। কোনো একটা গাড়ি যদি বিকল হয়ে যায়, তাহলে তিন মাইল পর্যন্ত গাড়ির লাইন হয়ে যায়। 

তিনি আরো বলেন, দেশে একের পর এক ফ্লাইওভার হচ্ছে। ফ্লাইওভার যত বড়, তার নিচে ততটুকু রাস্তা অব্যবহৃত হয়ে আসছে। তাহলে উপরের রাস্তাটি দরকার কেন আমরা যদি রিকশা এবং ফুটপাতের দোকানগুলোকে কন্ট্রোল করতে পারতাম, তাহলে এভাবে হাজার হাজার কোটি টাকা নষ্ট হতো না।

নিসচার মহাসচিব এহসানুল হক বলেন, বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনার সবচেয়ে বেশি শিকার হয় পথচারীরা। ২০১৭ সালে ১ হাজার ৯৬৪টি দুর্ঘটনায় পথচারী নিহত হয়েছে ২ হাজার ৮০৪ জন। 

তিনি বলেন, দেশের জনগণের মধ্যে সচেতনতা বোধের অভাব রয়েছে, যা বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে তুলনা করা যায় না। ২০২০ সালের মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনা ৫০ শতাংশ কমিয়ে আনার জন্য জাতিসংঘের টার্গেট পূরণ করা কখনো সম্ভব হবে না, যদি না জনগণকে সচেতন করতে পারি।

আলোচনা সভায় নিরাপদ সড়ক চাই এর সভাপতি  ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, আমরা নিজেদের দায়িত্ব-কর্তব্য ঠিকমতো পালন করি না। আমরা যদি আমাদের দায়িত্ব-কর্তব্যগুলো নিজের মনের মধ্যে নিয়ে করতে পারি তবে আমি মনে করি, সড়ক দুর্ঘটনা থামাতে পারবো।

সেমিনারে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে যেভাবে বাইক চালানো হয়, বিশ্বের কোথাও হয় না। তারা বলেন, দেশে একটি বাইকে হেলমেট ছাড়া দুইজন আবার কখনো কখনো তিনজন নিয়ে চলে বাইক। বিয়ষটি গুরুত্বের সঙ্গে দেখার জন্য বক্তারা ট্রাফিক পুলিশ বিভাগের সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ করেন।

অনুষ্ঠানে বিএফইউজের মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, দেশে দুর্ঘটনা বাড়লেও বেড়েছে সচেতনতা। আমরা আশা করছি এই সচেতনতা থেকেই দেশে দুর্ঘটনার হার কমে আসবে। তিনি নিরাপদ সড়ক চাই এই আন্দোলনকে বেগবান করার জন্য মিডিয়ার কর্মীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

এসব তথ্য উপস্থাপন শেষে আলোচনা সভার মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এহসানুল হক। এতে তিনি সড়ক দুর্ঘটনা নিরসনে কিছু সুপারিশ তুলে ধরেন।

‘নিরাপদ সড়ক চাই’ (নিসচা) আন্দোলন ১৯৯৩ সালের ১ ডিসেম্বর রাজধানীর এফডিসি থেকে জাতীয় প্রেসক্লাব পর্যন্ত পদযাত্রার মাধ্যমে শুরু হয়। 

উল্লেখ্য, ২০১৫-১৬ সালে সড়ক দুর্ঘটনা হার নিম্নগামী থাকলেও ২০১৭ সালে তা বেড়ে যায়। এ বছরের অক্টোবর পর্যন্ত দুর্ঘটনা ঘটেছে ৩ হাজার ১৩৩টি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএএস/জেডআর

 

 

শিরোনাম

শিরোনামচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (চাকসু) নির্বাচনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ শিরোনামসাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে ভারতের কাছে ৪-০ গোলে হেরে বাংলাদেশের বিদায় শিরোনামবাসচাপায় আবরারের মৃত্যুর ঘটনায় ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের শিরোনামযশোরের শার্শায় পিকআপ ভ্যানচাপায় স্কুলছাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন শিরোনামরাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় বিইউপির ছাত্র নিহতের প্রতিবাদে প্রগতি সরণিসহ কয়েকটি সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ; নিরাপদ সড়কের দাবিতে শাহবাগে ঢাবি শিক্ষার্থীদের অবস্থান শিরোনামসিঙ্গাপুরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সফলভাবে বাইপাস সার্জারি সম্পন্ন শিরোনামক্রাইস্টচার্চ হামলা: নিহতদের দাফন শুরু; এখনো হস্তান্তর হয়নি সব মরদেহ শিরোনামঢাকা-কলকাতা জাহাজ সার্ভিস চালু ২৯ মার্চ