Alexa স্রো‌তে ভে‌ঙে গেল ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক

ঢাকা, রোববার   ১৮ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৩ ১৪২৬,   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

স্রো‌তে ভে‌ঙে গেল ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:৪৫ ১৯ জুলাই ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

যমুনা নদীর তীব্র পা‌নির স্রো‌তে ভূঞাপুর-তারাকা‌ন্দি সড়‌ক ভে‌ঙে সব ধর‌নের যোগা‌যোগ বি‌চ্ছিন্ন হ‌য়ে গে‌ছে। বৃহস্প‌তিবার সন্ধ্যা ৭টা ৩৫ মি‌নি‌টে ওই সড়‌কের ভূঞাপুর উপ‌জেলার টে‌পিবা‌ড়ি এলাকার সড়ক ভে‌ঙে প্লা‌বিত হ‌য়ে‌ছে বিস্তীর্ণ এলাকা।

ত‌বে স্থানীয়দের অভি‌যোগ, পাউ‌বোর কর্মকর্তা‌দের গা‌ফিল‌তির কার‌ণে সড়ক‌টি বন্যার পা‌নি‌তে ভে‌ঙে গে‌ছে। সং‌শ্লিষ্টরা য‌দি ভাঙন‌রো‌ধে পূ‌র্বে উদ্যোগ গ্রহণ কর‌ত তাহ‌লে এমনটা হত না। 

এর আগে ওই সড়‌কে দুপুর হ‌তে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। 

এদিকে যমুনা নদীর পানি অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৯৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে উপজেলার শতাধিক গ্রামের কয়েক লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। পানিতে তলিয়ে গেছে চরাঞ্চলের বেশ কয়েকটি গ্রাম। তলিয়ে গেছে ফসলি জমি। বন্যা কবলিত মানুষজন গবাদিপশু নিয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধির রেকর্ড করা হয়েছে। এতে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ৯৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। 
এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দি‌কে বন্যার পানি প্রবেশ করে পৌরসভার টেপিবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় ভেঙে পড়েছে। ভাঙনের কারণে বিদ্যালয় মাঠ পুকুরে পরিণত হয়েছে।

এছাড়া বুধবার (১৭ জুলাই) রাত ১১টার দিকে উপজেলার তাড়াই এলাকার বাঁধ ভেঙে প্রায় ১০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। তীব্র স্রোতে নদীর পানি প্রবেশ করায় ভেঙে গেছে বেশ কয়েকটি বসতভিটা। এতে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কের বেশ কয়েকটি স্থান দিয়ে পানি লিকেজ হওয়ায় হুমকিতে পড়েছে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। 

উপজেলা শিক্ষা কার্যালয় সূত্র বলছে, উপজেলার ১৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পাঁচটি মাদরাসা ও ৪৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করায় সেগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। 

অন্যদিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বন্যার্তদের মাঝে ২শ’ মেট্রিক টন চাল বিতরণের কথা জানালেও অধিকাংশ বানভাসি মানুষ ত্রাণ না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

ইউএনও ঝোটন চন্দ জানান, বন্যা কবলিতদের দুর্ভোগ লাঘবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। অস্বাভাবিক হারে পানি বৃদ্ধির ফলে অর্জুনা ইউপির তাড়াই বাঁধ ভেঙে গেছে। এছাড়া ভাঙন অংশে পাউবো কাজ করছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম

Best Electronics
Best Electronics