Alexa স্যামসাং-আইফোন স্বাস্থ্যের জন্য ‘বিপজ্জনক’: গবেষণা

ঢাকা, শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

স্যামসাং-আইফোন স্বাস্থ্যের জন্য ‘বিপজ্জনক’: গবেষণা

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১১ ২২ আগস্ট ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

গত তিন বছর ধরে অ্যাপল, স্যামসাংসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান যেসব ফোন বিক্রি করেছে সেগুলো মানুষের জন্য ‘বিপজ্জনক’ রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি রেডিয়েশন উৎপন্ন করেছে বলে জানিয়েছে শিকাগো ট্রিবিউন।

যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম প্রধান এই সংবাদমাধ্যমটি নিজেদের উদ্যোগে কয়েকটি জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠানের স্মার্টফোন পরীক্ষা করে। ক্যালিফোর্নিয়ার ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশন (এফসিসি) অনুমোদিত আরএফ এক্সপোজার ল্যাবে গত এক বছর ধরে এ গবেষণা করার পর তারা দাবি করছে, এফসিসি যে মাত্রার রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি রেডিয়েশন সমর্থন করে তার চেয়ে বেশি উৎপন্ন করেছে এসব ফোন। 

এফসিসির নীতিমালা অনুযায়ী বর্তমানের নিরাপদ মাত্রাকে স্পেসিফিক অ্যাবজরপশন রেট বা ‘এসএআর’ বলা হয়। প্রতি কিলোগ্রামে এই মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১.৬ ওয়াট করে।

ট্রিবিউন তাদের দীর্ঘ তদন্তে ১১টি আলাদা মডেল পরীক্ষা করেছে: চারটি আইফোন (৭, ৮, ৮ প্লাস এবং এক্স), স্যামসাং গ্যালাক্সির তিনটি (এস৮, এস৯ এবং জে৩), মটোরোলার তিনটি (ই৫, ই৫ প্লে এবং জি৬ প্লে) এবং একটি ব্লু ভিভো ৫ মিনি।

পরীক্ষকেরা ‘কৃত্রিম শরীরের’ ২, ৫, ১০ অথবা ১৫ মিলিমিটারের আশপাশে ফোনগুলো রাখেন। সঙ্গে চিনি, পানি এবং লবণের মিশ্রণ যোগ করা হয়।

ফলাফলে দেখা যায় আইফোন ৭’র রেডিও ফ্রিকোয়েন্সির শোষণমাত্রা সবচেয়ে বেশি। একই সঙ্গে শরীর থেকে ২ মিলিমিটার দূরের পরীক্ষায় এই ফোনটি নিরাপদ মাত্রার থেকে ২ অথবা ৪ গুণ বেশি রেডিয়েশন উৎপন্ন করেছে। একই দূরত্বে অন্য ফোনগুলোর অবস্থাও প্রায় একই।

তবে মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল তাদের আইফোন নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। সাড়া পাওয়া যায়নি দক্ষিণ কোরীয় প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়েরও।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ