স্যাটেলাইটের মালিকানা নিয়ে প্রশ্ন লজ্জাজনক
SELECT bn_content_arch.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content_arch INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content_arch.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content_arch.ContentID WHERE bn_content_arch.Deletable=1 AND bn_content_arch.ShowContent=1 AND bn_content_arch.ContentID=40027 LIMIT 1

ঢাকা, রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

‘স্যাটেলাইটের মালিকানা নিয়ে প্রশ্ন লজ্জাজনক’

 প্রকাশিত: ১৩:১৮ ৬ জুন ২০১৮   আপডেট: ০৯:২৩ ৭ জুন ২০১৮

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মালিক বাংলাদেশ সরকার, কোনো ব্যক্তি নয়। স্যাটেলাইটের মালিকানা নিয়ে প্রশ্ন তোলা লজ্জাজনক।

বুধবার দশম জাতীয় সংসদের ২১তম বাজেট অধিবেশনে সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি ফজিলাতুন্নেছা বাপ্পির এক প্রশ্নের উত্তরে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্যাটেলাইটের মালিকানা অবশ্যই বাংলাদেশের। বাংলাদেশ সরকারই এর মালিক। ডাইরেক্ট টেলিভিশন টু হোম টেকনোলজি এটা বোধহয় তথ্যমন্ত্রী দুইজন ব্যক্তিকে ব্যবহার করতে দিয়েছেন। কিন্তু তথ্যমন্ত্রী ওই দুই ব্যক্তিকে, কাকে পুরো স্যাটালাইট দিয়ে দেয়া হলো এটা আমার কাছে বোধগম্য না।

তিনি বলেন, স্যাটেলাইটের মালিকানা নিয়ে প্রশ্ন অর্বাচীনের মতো। যা জাতির কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্যাটেলাইট পৃথিবীর বহু দেশ অনেক আগে উৎক্ষেপণ করেছে। কিন্তু বাংলাদেশ এ ব্যাপারে কখনো চিন্তাই করেনি, যে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা যাবে, আমরা এটা করেছি।

যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার কথা বলে তিনি আরো বলেন, বিশ্বে যখনই কোনো নতুন প্রযুক্তি আসবে, সেটা নিয়ে যেন আমরা গবেষণা করতে পারি, ধারণ করতে পারি, আমরা ব্যবহার করতে পারি, কিভাবে ব্যবহার উপযোগী হয় সেটাই আমরা করব। এখন স্যাটেলাইটের যুগ, স্যাটেলাইট আমরা পাঠিয়েছি। এখন দেখি বিশ্বে আবার নতুন আরেকটা কি যুগ আসে। আমরা সেদিকেও যাব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যেহেতু একটা স্যাটেলাইটের আয়ুষ্কাল থাকে ১৫ বছর। এটা বানাতেও সময় লাগে। কোনো জিনিস ৫-৬ বছর ব্যবহার করার পর আয়ুষ্কাল ক্ষয় হয়। তাই কোনো সমস্যা যাতে সৃষ্টি না সেটা মাথায় রেখেই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২ এর কাজ করার এখন থেকেই প্রস্তুতি নিচ্ছি। এটার সময় শেষ হলে তৃতীয়টির কাজ শুরু হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আমরা গবেষণা চালিয়ে যাব। এর মধ্যে আরো নতুন টেকনোলজি আসলে সেটার ওপর আমরা উদ্যোগ নেব।

গবেষণার গুরুত্ব উল্লেখ করে তিনি বলেন, কৃষি থেকে শুরু করে ডাক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং প্রত্যেকটা ক্ষেত্রেই গবেষণা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একমাত্র গবেষণার মধ্য দিয়ে একটা দেশ ও জাতি সমৃদ্ধি লাভ করতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাঙালি সব সময় স্বাধীনচেতা। বাঙালিকে কেউ দাবিয়ে রাখতে পারেনি। কখনো পারবেও না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে