Alexa স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কারে মাটি কাটলেন ইউএনও

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৭ ১৪২৬,   ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কারে মাটি কাটলেন ইউএনও

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:৫৯ ২৮ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৩:০২ ২৮ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: ডেইলি ‍বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি ‍বাংলাদেশ

জামালপুরের বকশীগঞ্জে ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামীণ সড়ক সংস্কারের জন্য ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছেন ইউএনও আ.স.ম. জামশেদ খোন্দকার।

সোমবার বাট্টাজোড় ইউপির জিন্নাহ বাজার এলাকায় স্বেচ্ছাশ্রমে সড়কের সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন ইউএনও আ.স.ম. জামশেদ খোন্দকার। এ সময় তিনি নিজে মাটি কেটে স্বেচ্ছাসেবী মানুষদের উৎসাহিত করেন।  

জানা গেছে, ইউএনও আ.স.ম. জামশেদ খোন্দকার নিজ উদ্যোগে গ্রামবাসীকে সঙ্গে নিয়ে এ স্বেচ্ছাশ্রমে কাজের দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়কগুলোর মধ্যে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এসব সড়ক সংস্কারের জন্য স্বেচ্ছাশ্রম দিচ্ছেন স্ব স্ব এলাকাবাসী। 

জানা গেছে, বন্যায় উপজেলার সাতটি ইউপিতে গ্রামীণ সড়কের ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে মেরুরচর ইউপির প্রায় ৩৫ কিলোমিটার সড়ক বন্যায় চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। সরকারি বরাদ্দের অপ্রতুলতার কারণে অনেক সময় সব সড়ক একসঙ্গে মেরামত করা সম্ভব হয় না। তাই সরকারি বরাদ্দের পাশাপাশি স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কারের জন্য উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, স্বপ্ন প্রকল্পের শ্রমিক, ৪০ দিনের কর্মসূচির শ্রমিক, স্থানীয় স্কুলের শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসী স্বতস্ফূর্তভাবে এ মাটি কাটা কাজে অংশ নেয়।

স্থানীয় সরকার বিভাগের স্বপ্ন প্রকল্প ও অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি) প্রকল্পের শ্রমিকরাও স্বেচ্ছায় শ্রমিকদের পাশাপাশি সড়ক সংস্কারে অংশ নিচ্ছেন। এতে করে প্রতিদিন তিন শতাধিক নারী-পুরুষ স্বেচ্ছাশ্রমে অংশ নিচ্ছেন।

মেরুরচর ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জেহাদ জানান, বন্যায় এ ইউপিতে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার সড়ক নষ্ট হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যতটুক বরাদ্দ পাওয়া গেছে তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। এ বরাদ্দ দিয়ে সড়ক সংস্কার করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। তাই স্থানীয় মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে নিজেরাই সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মাহাবুব খান জানান, আমরা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা পাঠিয়েছি। তবে এখন পর্যন্ত পর্যাপ্ত বরাদ্দ পাওয়া যায়নি।

বকশীগঞ্জের ইউএনও আ.স.ম. জামশেদ খোন্দকার জানান, সরকারের পাশাপাশি স্থানীয় জনগোষ্ঠী নিজ থেকেই সড়ক সংস্কারের কাজে অংশগ্রহণ করেছে। প্রতিটি ইউপিতে এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) হাসান মাহবুব খান, বাট্টাজোড় ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক তালুকদার, প্যানেল চেয়ারম্যান আবদুর রহিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর