.ঢাকা, শনিবার   ২০ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ৬ ১৪২৬,   ১৪ শা'বান ১৪৪০

স্বামীর পরকীয়া সইতে না পেরে স্ত্রীর আত্মহত্যা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৩ ১ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ২০:৪৩ ১ মার্চ ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে স্বামীর পরকীয়া সইতে না পেরে সাথী আক্তার দীপা নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত দীপা গোয়ালন্দ পৌরসভার আলম চৌধুরীর পাড়ার আ. সালাম প্রামানিকের মেয়ে। সাথী গোয়ালন্দ কামরুল ইসলাম সরকারি কলেজের স্নাতক প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

এ ঘটনায় গৃহবধুর বাবা বাদী হয়ে শুক্রবার গোয়ালন্দ ঘাট থানায় তার জামাতা রাসেল চৌধুরী ও পরকীয়া প্রেমিকা সেতুকে আসামি করে আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা করেছেন। 

রাসেল চৌধুরী গোয়ালন্দ পৌরসভার জুড়ান মোল্লার পাড়ার মঞ্জু চৌধুরীর ছেলে ও সেতু বিজয়বাবু পাড়ার সেলিম মোল্লার মেয়ে।

এজাহারে বলা হয়েছে , তিন বছর আগে সালাম প্রামানিকের মেয়ে দীপার সঙ্গে পারিবারিকভাবে রাসেল চৌধুরীর বিয়ে হয়। তাদের দু’জনেরই এটা দ্বিতীয় বিয়ে ছিল। বিয়ের পর থেকে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির সুবাদে তারা ঢাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করত। তাদের পারিবারিক জীবন ভালোই কাটছিল। বছরখানেক আগে রাসেল চৌধুরী গোয়ালন্দে এক কলেজ শিক্ষকের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী অপর এক গৃহবধু সেতুর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। এ কারণে রাসেল চৌধুরী দীপাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। এ পরিস্থিতিতে চার মাস আগে রাসেল চৌধুরী তার পরকীয়া প্রেমিকা সেতুকে তার ঢাকার বাসায় নিয়ে তোলে। এসময় তার স্ত্রী দীপা তার সম্পর্কে জানতে চাইলে রাসেল বলে সে তাকে বিয়ে করবে। বিষয়টি সহজে মানতে না পেরে দীপা সেখান থেকে গোয়ালন্দে বাবার বাড়িতে চলে আসে। এরপর থেকে রাসেল চৌধুরী ও সেতু তাদের জীবন থেকে সরে যেতে দীপাকে ফোনে চাপাচাপি করতে থাকে।

এ পরিস্থিতিতে গত বৃহস্পতিবার রাসেল চৌধুরীর ভাগ্নের সুন্নতে খাৎনার অনুষ্ঠানে যায় দীপা। সেখানে রাসেল চৌধুরীও সেতুকে নিয়ে আসে এবং দীপাকে অপমানজনক বিভিন্ন কথা বলে। স্বামীর পরকীয়া ও অপমান সইতে না পেরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দীপা বাবার বাড়িতে এসে নিজ ঘরে ওরনা পেঁচিয়ে আত্মহত্যার পথ বেঁছে নেয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মো. এজাজ শফী বলেন, নিহত দীপার ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় গোয়ালন্দ ঘাট থানায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনার আইনে মামলা করেছেন। দুই আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ