Exim Bank Ltd.
ঢাকা, বুধবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫

স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীন বাংলাদেশ

রনি রেজা
১৯৯২ সালের ৫ মার্চ গোপালঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার মহারাজপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন রনি রেজা। প্রকৃতির রূপবৈচিত্রে ঘেরা গ্রামটিতেই তার বেড়ে ওঠা। সমাজবিজ্ঞানে অনার্স-মাস্টার্স করা হলেও বাংলা সাহিত্যে রয়েছে বিশেষ ঝোঁক। ছাত্রজীবনে দেশের প্রথম সারির দৈনিকগুলোতে লিখতেন ফিচার, প্রবন্ধ, গল্প ও কবিতা। সে থেকেই যোগাযোগ গণমাধ্যমের সঙ্গে। একসময় এই সাহিত্যের গলি বেয়েই ঢুকে পড়েন সাংবাদিকতায়। দৈনিক ভোরের পাতা, সংবাদ প্রতিদিন, যমুনানিউজ টোয়েন্টিফোরডটকম ও আজকের বাজার পত্রিকায় কাজ করেছেন সহ-সম্পাদক ও সিনিয়র সহ-সম্পাদক হিসেবে। বর্তমানে ডেইলি বাংলাদেশ’র মফস্বল সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি অব্যাহত রেখেছেন দৈনিক পত্রিকাগুলোতে লেখালেখি।

আজকের এই স্বাধীন বাংলাদেশ যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ফসল; এটা সর্বজন স্বীকৃত। তার স্বপ্নে ভর করেই নিরস্ত্র বাঙালি জাতি হিংস্র পাকিস্তানি বাহিনীর বিপক্ষে জয় ছিনিয়ে আনতে পেরেছিল। সেখান থেকেই ছড়িয়েছিল সোনালী স্বপ্নের দানা। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের শক্তিই গোটা জাতিকে একত্রিত করেছিল।

আসলে মুক্ত বিহঙ্গের মত জীবনযাপনের স্বপ্ন বাঙালি জাতির মধ্যে অনেক আগে থেকেই সুপ্তভাবে বাস করতো। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে তা বেগ পায়। জীবন্ত হয়ে ওঠে। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ নিয়ে তার একান্ত স্বপ্নের কথা সাহসের সঙ্গে, আস্থার সঙ্গে, বিশ্বাসের সঙ্গে উচ্চারণ করেছেন বাংলাদেশের অভ্যুদয় লগ্নেরও বহু আগ থেকে। ১৯৪৭ সাল থেকেই তিনি বাংলাদেশকে পৃথক রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখতেন।

কবি অন্নদাশঙ্কর রায় তার স্মৃতিকথায় উল্লেখ করেছেন এভাবে- শেখ সাহেবকে আমরা প্রশ্ন করি, ‘বাংলাদেশের আইডিয়াটা প্রথম কবে আপনার মাথায় এলো?’ শুনবেন’ বলে তিনি (বঙ্গবন্ধু) মুচকি হেসে বলেন, ‘সেটা ১৯৪৭ সাল। তখন আমি সোহরাওয়ার্দী সাহেবের দলে। তিনি ও শরৎচন্দ্র বসু চান যুক্তবঙ্গ। আমিও চাই সব বাঙালির এক দেশ। বাঙালিরা এক হলে কি না করতে পারত। তারা জগৎ জয় করতে পারত।’ বলতে বলতে তিনি উদ্দীপ্ত হয়ে ওঠেন। তারপর বিমর্ষ হয়ে বলেন, ‘দিল্লি থেকে খালি হাতে ফিরে এলেন সোহরাওয়ার্দী ও শরৎ বোস। কংগ্রেস বা মুসলিম লীগ কেউ রাজি নয় তাদের প্রস্তাবে। তারা হাল ছেড়ে দেন। আমিও দেখি যে আর কোনো উপায় নেই। ঢাকায় চলে এসে নতুন করে আরম্ভ করি। তখনকার মতো পাকিস্তান মেনে নিই। কিন্তু আমার চাওয়া কেমন করে পূর্ণ হবে এই আমার চিন্তা। হবার কোনো সম্ভাবনাও ছিল না। লোকগুলি যা কমিউনাল! বাংলাদেশ চাই বললে সন্দেহ করতো। হঠাৎ একদিন রব উঠল, আমরা চাই বাংলা ভাষা। আমিও ভিড়ে যাই ভাষা আন্দোলনে।

ভাষাভিত্তিক আন্দোলনকেই একটু একটু করে রূপ দিই দেশভিত্তিক আন্দোলনে। পরে এমন একদিন আসে যেদিন আমি আমার দলের লোকাদের জিজ্ঞাসা করি, আমাদের দেশের নাম কী হবে? কেউ বলে পাক-বাংলা। কেউ বলে পূর্ণ বাংলা। আমি বলি, না, বাংলাদেশ। এটাই শেষ কথা। তারপর আমি স্লোগান দেই, জয় বাংলা। আসলে ওরা আমাকে বুঝতে পারে নাই। জয় বাংলা বলতে আমি বোঝাতে চেয়েছিলাম বাংলা ভাষা, বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির জয়। যা সম্প্রদায়িকতার ঊর্ধ্বে।’

বঙ্গবন্ধুর এ কথাগুলোই প্রমাণ করে তিনি বাঙালিদের নিয়ে কতটা স্বপ্ন দেখতেন। শুধু কি একটি স্বাধীন দেশই চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু? শুধুমাত্র একখ- মুক্ত ভূমির জন্যই এত ত্যাগ তিতিক্ষা? অবশ্যই না। তাহলে প্রশ্ন সামনে দাঁড়ায়, স্বাধীনতার মূল উদ্দেশ্য কী ছিল? গোটা জাতি কীসের আশায় বুক বেঁধে পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে নেমেছিল। বঙ্গবন্ধুর চাওয়া ছিল কতটুকু? আকাশ ছোঁয়া স্বপ্ন নিয়ে জয় ছিনিয়ে এনে কতটুকু তা বাস্তবায়ন করতে পেরেছেন। কেমন বাংলাদেশ চাই প্রসঙ্গে ১৯৭২ সালের ২৬শে মার্চ প্রথম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে বেতার ও টিভি ভাষণে বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘আমার সরকার অভ্যন্তরীণ সমাজ বিপ্লবে বিশ্বাস করে৷ এটা কোনো অগণতান্ত্রিক কথা নয়৷ আমার সরকার ও পার্টি বৈজ্ঞানিক সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতি প্রতিষ্ঠা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ৷ একটি নতুন ব্যবস্থার ভিত রচনার জন্য পুরাতন সমাজব্যবস্থা উপড়ে ফেলতে হবে৷ আমরা শোষণমুক্ত সমাজ গড়বো৷’ ১৯৭২ সালের ৪ঠা নভেম্বর সংবিধান বিলের উপর বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘বাংলার মানুষের কাছে ওয়াদা করেছিলাম বাংলার মানুষকে মুক্ত করতে হবে, বাংলার মানুষ সুখী হবে, বাংলার সম্পদ বাঙালিরা ভোগ করবে। সেই জন্য সংগ্রাম করেছিলাম’।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দুঃখী বাঙালির মুখে হাসি ফোটানো। তার আকাক্সক্ষা ছিল শোষণহীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার। স্বপ্ন দেখেছেন ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশের। অসাম্প্রদায়িক চেতনা ছিল তার মজ্জাগত। মানবিক চেতনায় তিনি সর্বদা সজাগ ছিলেন। তিনি ছিলেন বাঙালির ঐতিহ্যিক সংস্কৃতির ধারক। সেই স্বপ্ন পূরণে ভবিষ্যৎ বংশধরদের জন্য গণতন্ত্র, জাতীয়তাবাদ, সমাজতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতার ভিত্তিতে একটি শোষণহীন সমাজভিত্তিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত করতে বঙ্গবন্ধু সর্বাত্মক চেষ্টা করেছেন। একইসঙ্গে চেষ্টা করেছেন সকল দ্বন্দ্ব ভুলে সম্মিলিতভাবে এক কাতারে দাঁড়িয়ে সোনার বাংলাদেশ গড়তে। কিন্তু হায়েনাদের রক্ত-পিপাসা তা থমকে দিয়েছে। কাকড় গুঁড়া ধুলার মতো স্বপ্নগুলোকে মলিন করে দিতে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ভোররাতে ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়িতে হামলে পড়ে শকুনের দল।

বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু সংবাদের সঙ্গে আরও একটি সংবাদ দেশের মানুষের কথা হয়ে বাতাসে ভাসতে শুরু করে। তা হচ্ছে- বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের দায়বদ্ধতা। আজও সে সংবাদ মুক্ত বাতাসে ঘুরছে। নিভৃতে কান পাতলেই সে সংবাদ শোনা যায়। সে সংবাদই সাহস জোগায়, অনুপ্রেরণা দেয়। সেই দায়বদ্ধতা থেকেই আমরা বার বার আশ্রয় নিই বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগে। আর সেই দায়বদ্ধতা থেকেই উন্নয়ন, অগ্রগতি ও সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় লাল সবুজের নিশানা নিয়ে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সিঁড়ি’ বেয়ে বাংলাদেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আজকের ১৬ কোটি জনগণের আস্থা ও সমর্থনের প্রতীক হয়ে আছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা। তারই হাত ধরে নিশ্চিতভাবে, বাংলাদেশ ২০৪১ সালের আগেই উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশে পরিণত হবে। তাই একথা স্পষ্ট করেই বলা যায়- শুধু রাজনৈতিক বিবেচনায় নয়; আওয়ামী লীগকে সার্বিকভাবে এগিয়ে নেয়া আমাদের দায়বদ্ধতা।

আরোও পড়ুন
সর্বশেষ
এক সাহসী আদিবাসীর উপাখ্যান
এক সাহসী আদিবাসীর উপাখ্যান
শিশু জয়নাবের ধর্ষক-হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর
শিশু জয়নাবের ধর্ষক-হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
মনোনয়ন ঘিরে কালীগঞ্জ আওয়ামী লীগে দ্বন্ধ
মনোনয়ন ঘিরে কালীগঞ্জ আওয়ামী লীগে দ্বন্ধ
‘নারীদের প্রতি তার আসক্তি চরম’
‘নারীদের প্রতি তার আসক্তি চরম’
খুলনার সরকারি গুদামের ৯৭ কোটি টাকার গম পোকায় খাচ্ছে!
খুলনার সরকারি গুদামের ৯৭ কোটি টাকার গম পোকায় খাচ্ছে!
কিছু নেতা লাভবান হতে বেঈমানী করছে: রিজভী
কিছু নেতা লাভবান হতে বেঈমানী করছে: রিজভী
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ৬০
সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ৬০
ধুনটে যমুনার ১৫০ মিটারে ধস
ধুনটে যমুনার ১৫০ মিটারে ধস
দুর্নীতির অভিযোগে তিতাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত
দুর্নীতির অভিযোগে তিতাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত
আত্মসমর্পণে সাড়া নেই জঙ্গিদের
আত্মসমর্পণে সাড়া নেই জঙ্গিদের
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
প্লাস্টিক খাচ্ছেন ফুটবলাররা, কিন্তু কেন?
প্লাস্টিক খাচ্ছেন ফুটবলাররা, কিন্তু কেন?
প্লুটোকে কেন এখন গ্রহ বলা হয় না?
প্লুটোকে কেন এখন গ্রহ বলা হয় না?
বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে বাংলাদেশ পিছিয়েছে
বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে বাংলাদেশ পিছিয়েছে
নরসিংদীর অন্য জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের প্রস্তুতি
নরসিংদীর অন্য জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের প্রস্তুতি
মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে হয়রানির অভিযোগ প্রত্যাখ্যান চীনের
মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে হয়রানির অভিযোগ প্রত্যাখ্যান চীনের
তিন ডাক্তারেই চলছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
তিন ডাক্তারেই চলছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
বিসিসিআই ‘ভণ্ডামি’ করছে
বিসিসিআই ‘ভণ্ডামি’ করছে
​অসম বয়সের সংসার কেমন তাদের?
​অসম বয়সের সংসার কেমন তাদের?
আজ মহা অষ্টমী ও কুমারী পূজা
আজ মহা অষ্টমী ও কুমারী পূজা
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক রাতে
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক রাতে
ক্রেতাদের ভরসা ঘেরের মাছ
ক্রেতাদের ভরসা ঘেরের মাছ
রাভিনার বিরুদ্ধে মামলা
রাভিনার বিরুদ্ধে মামলা
ঢাকায় বিশ্বকাপ ট্রফি
ঢাকায় বিশ্বকাপ ট্রফি
যৌন হেনস্থার অভিযোগে কোচের আত্মহত্যা
যৌন হেনস্থার অভিযোগে কোচের আত্মহত্যা
সাবিলা নয়, ভক্তরাই ঘুম হারাম করেছেন তার!
সাবিলা নয়, ভক্তরাই ঘুম হারাম করেছেন তার!
উত্তরখানে দগ্ধ আরো একজনের মৃত্যু, মৃত বেড়ে ৫
উত্তরখানে দগ্ধ আরো একজনের মৃত্যু, মৃত বেড়ে ৫
সেই চন্দ্রমোহনই দেখছেন সাকিবের আঙ্গুল!
সেই চন্দ্রমোহনই দেখছেন সাকিবের আঙ্গুল!
সর্বাধিক পঠিত
‘স্বামীকে ছেড়ে’ জোভানের সংসার করতে চান মিম!
‘স্বামীকে ছেড়ে’ জোভানের সংসার করতে চান মিম!
বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে স্ত্রীর সেরা উপহার!
বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে স্ত্রীর সেরা উপহার!
দুই স্বামীকে ‘ছেড়ে’ মন্ট্রিলে দেখা মিলল তিন্নির!
দুই স্বামীকে ‘ছেড়ে’ মন্ট্রিলে দেখা মিলল তিন্নির!
এবার যৌন হেনস্থা নিয়ে মুখ খুললেন ঐশ্বরিয়া!
এবার যৌন হেনস্থা নিয়ে মুখ খুললেন ঐশ্বরিয়া!
‘তিন ভাই’ একসঙ্গে আমাকে ধর্ষণ করেছিল’
‘তিন ভাই’ একসঙ্গে আমাকে ধর্ষণ করেছিল’
‘ওয়েব সিরিজে ভরপুর নগ্নতা’ দেখার কেউ নেই!
‘ওয়েব সিরিজে ভরপুর নগ্নতা’ দেখার কেউ নেই!
দশ বছরের বেশি মেয়েদের জিন্স পরায় নিষেধাজ্ঞা
দশ বছরের বেশি মেয়েদের জিন্স পরায় নিষেধাজ্ঞা
প্রেমিকের কবরে কনের সাজে প্রেমিকার কান্না
প্রেমিকের কবরে কনের সাজে প্রেমিকার কান্না
একী কাণ্ড এমপি মনির! (ভিডিও)
একী কাণ্ড এমপি মনির! (ভিডিও)
ফার্মগেটে যৌন হেনস্তাকারীকে কিশোরীর শায়েস্তা
ফার্মগেটে যৌন হেনস্তাকারীকে কিশোরীর শায়েস্তা
১ কোটি টাকা চেয়েছিলেন অনন্ত
১ কোটি টাকা চেয়েছিলেন অনন্ত
প্রভার ‘গর্ভে’ বেড়ে উঠছে রক্তিমের সন্তান!
প্রভার ‘গর্ভে’ বেড়ে উঠছে রক্তিমের সন্তান!
দাম শুনলে চমকে যাবেন যে কেউই!
দাম শুনলে চমকে যাবেন যে কেউই!
মিলনেই মৃত্যু, কারা ছিলো সেই ‘বিষকন্যা’?
মিলনেই মৃত্যু, কারা ছিলো সেই ‘বিষকন্যা’?
মাহি-মান্নার গোপন ফোনালাপ ফাঁস
মাহি-মান্নার গোপন ফোনালাপ ফাঁস
বলিউডের আলোচিত ৩ পরকীয়া
বলিউডের আলোচিত ৩ পরকীয়া
‘শিস কন্যা’র তালে গাইলেন প্রসেনজিৎ
‘শিস কন্যা’র তালে গাইলেন প্রসেনজিৎ
বিয়ে ভারতেই, অতিথির তালিকায় মাত্র...
বিয়ে ভারতেই, অতিথির তালিকায় মাত্র...
গজব পড়বে, ফাঁসির দণ্ড পেয়ে বাবর
গজব পড়বে, ফাঁসির দণ্ড পেয়ে বাবর
ভারতীয়দের নজরে ‘তারাই সেরা’!
ভারতীয়দের নজরে ‘তারাই সেরা’!
শিরোনাম:
জঙ্গি আস্তানা: নরসিংদীর আরেকটি বাড়িতে অভিযানের প্রস্তুতি চলছে জঙ্গি আস্তানা: নরসিংদীর আরেকটি বাড়িতে অভিযানের প্রস্তুতি চলছে বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে একধাপ পিঁছিয়েছে বাংলাদেশ: ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে একধাপ পিঁছিয়েছে বাংলাদেশ: ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম দুর্গোৎসবে মহাঅষ্টমী আজ: বিভিন্ন স্থানে কুমারী পূজার আয়োজন দুর্গোৎসবে মহাঅষ্টমী আজ: বিভিন্ন স্থানে কুমারী পূজার আয়োজন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে তিতাস গ্যাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে তিতাস গ্যাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত আজ সৌদি বাদশাহের সাথে সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী আজ সৌদি বাদশাহের সাথে সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী নরসিংদীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে দুটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ নরসিংদীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে দুটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ