.ঢাকা, বুধবার   ২০ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৫ ১৪২৫,   ১৩ রজব ১৪৪০

স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা: স্বামী পলাতক

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৫:৪৩ ১০ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ১৬:২১ ১০ আগস্ট ২০১৮

স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্বামী পলাতক

স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্বামী পলাতক

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় স্ত্রী মিনা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্বপরিবারে পলাতক রয়েছেন স্বামী মোস্তফা আলী।

শুক্রবার সকালে স্থানীয়দের খবরে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পলাতক স্বামী মোস্তফা আলী আদিতমারী উপজেলার ভাদাই ইউপির সজিব বাজার এলাকার এমাজ আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা ডেইলি বাংলাদেশকে জানান,মোস্তফা আলী-মায়া বেগম দম্পতির দুই সন্তান আছে। মায়াকে বাড়িতে রেখে কাজের উদ্দেশে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে যান মোস্তফা।চার বছর আগে সন্দ্বীপের মিনা বেগমকে বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসেন। এরপর থেকে দুই স্ত্রীর মাঝে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত।মিনা বেগম ঝিয়ের কাজ করে সংসারের খরচ জোগাতেন। তার কোলজুড়ে আসে একটি কন্যা সন্তান। মিনাকে বাড়ি থেকে তাড়াতে নির্যাতন করত মোস্তফা, তার বড় বউ মায়া বেগম।

গত এক সপ্তাহ থেকে থেমে থেমে মারপিট করলেও চিকিৎসা করাত না। এ নিয়ে মিনা বেগম মাতব্বর সাবেক ইউপি সদস্য শফিকুল, স্থানীয় সজিব বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছে নালিশ দিলে শুক্রবার বৈঠকের দিন ধার্য করেন।

নালিশের বিষয়টি জানার পর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে স্বামী মোস্তফা ও তার বড় বউ মায়া বেগম। বৃহস্পতিবার রাতে মিনা বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যা করে বাড়ির বাইরে ফেলে স্বপরিবারে স্বামী মোস্তফা আলী।

স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক হামিদুর রহমান ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, নিহত গৃহবধূ মিনা বেগম প্রায় দিন মারপিটের জন্য চিকিৎসা নিতে তার কাছে আসতেন। বৃহস্পতিবার বিকেলেও চিকিৎসা নিয়েছেন।

সাবেক ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, নিহত গৃহবধূ নির্যাতনের বিচার চেয়ে বৃহস্পতিবার নালিশ করলে শুক্রবার বৈঠক করার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু শুক্রবার সকালে তার মরদেহ পাওয়া যায়।

আদিতমারী থানার ওসি মাসুদ রানা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, মরদেহ সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। মৃত্যুর প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম