স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে ‘ছেলেধরা’ সন্দেহের কবলে শিক্ষা কর্মকর্তা  
15-august

ঢাকা, বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২,   ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১১ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে ‘ছেলেধরা’ সন্দেহের কবলে শিক্ষা কর্মকর্তা  

ডেস্ক নিউজ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:০৩ ২৪ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ১৫:২০ ২৪ জুলাই ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তা তাপস পাল ‘ছেলেধরা’ গুজবের শিকার হয়েছেন বলে জানা গেছে। 

সোমবার দুপুরে নগরীর উত্তর কাট্টলী মুন্সিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে অভিভাবকদের সন্দেহের কবলে পড়েন এডিপিও তাপস পাল।

পরে স্কুল কর্তৃপক্ষ, জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের সহযোগিতায় পরে ওই শিক্ষা কর্মকর্তা অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পান। 

স্থানীয়রা বলেন, রোববার ওই স্কুল থেকে ৪ জন শিক্ষার্থীর মাথা সংগ্রহ করা হবে বলে এলাকায় একটি গুজব রটে। সোমবার সকালে স্কুলে আসেন শিক্ষা কর্মকর্তা তাপস পাল। এসময় অচেনা মানুষকে স্কুলে প্রবেশ করতে দেখে একের পর এক অভিভাবকরা এসে জড়ো হন। তারা স্কুল কার্যালয়ের সামনে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে।  

এ সময় ওই শিক্ষা কর্মকর্তা ছেলের মাথা নেয়ার ব্যাপারে স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চুক্তি করছে বলেও গুজব রটিয়ে দেয়া হয়। এমন পরিস্থিতিতে স্কুল কর্তৃপক্ষ স্থানীয় প্রশাসন ও গণ্যমান্য ব্যক্তিকে এ ঘটনার কথা জানায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও অভিভাবক আবু সুফিয়ান বলেন, স্কুলে শিশুর মাথা নিতে লোকজন আসবে বলে গুজব রটে। এমন পরিস্থিতিতে স্কুলে ওই শিক্ষা কর্মকর্তাকে দেখে অভিভাবকরা গুজবের ঘটনাকে সত্য মনে করে সন্দেহ করতে থাকে।  

তিনি বলেন, পাহাড়তলী থানার ওসিকে ফোন করলে তিনি একজন এসআই ও কয়েকজন পুলিশ সদস্য পাঠান। ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে অভিভাবকরা কিছুটা শান্ত হন। কিন্তু তাদের সন্দেহ কমে না। পুলিশের উপস্থিতিতে পরবর্তীতে স্কুল ছুটি হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এ ঘটনার সহকারী শিক্ষক সাইফুল ইসলাম বলেন, গুজব রটিয়ে ঘটনা সৃষ্টি করার চেষ্টা হতে পারে। পরে থানার ওসি এসে ক্লাসে ক্লাসে শিক্ষার্থীদের বুঝিয়েছেন। এ বিষয়ে সমাবেশ করে সচেতনতা কার্যক্রম চালানো হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »