Alexa সৌদি আকাশ দিয়ে ইসরাইল গেল ভারতীয় বিমান

ঢাকা, শনিবার   ২০ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৫ ১৪২৬,   ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪০

সৌদি আকাশ দিয়ে ইসরাইল গেল ভারতীয় বিমান

 প্রকাশিত: ১৮:৫৪ ২৩ মার্চ ২০১৮   আপডেট: ১৯:২৮ ২৩ মার্চ ২০১৮

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দখলদার ইসরাইলকে রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দেয়নি সৌদি আরব। তবে মোহাম্মদ বিন সালমান ক্রাউন প্রিন্স হওয়ার পর থেকে দেশটির সঙ্গে ইসরাইলের চরম সম্পর্ক বিরাজ করছে। তারই আরেক প্রমাণ মিলল বৃহস্পতিবার।

এই প্রথম সৌদি আরবের আকাশসীমা ব্যবহার করে কোনো বিমান ইসরাইলে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে। ওইদিন নয়াদিল্লি থেকে ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বাণিজ্যিক ফ্লাইট সৌদি আরবের আকাশসীমা ব্যবহার করে তেল আবিব অবতরণ করে। খবর: রয়টার্স ও এনডিটিভি।

প্রায় সাত ঘণ্টা আকাশে উড়ার পর এয়ার ইন্ডিয়া ১৩৯ ফ্লাইটি তেল আবিবের বেন গুরিয়ন বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এর মধ্যে প্রায় দু’ঘণ্টা সেটি সৌদি আরবের আকাশসীমায় ছিল।

আকাশসীমা ব্যবহারকে ইসরাইল মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির প্রভাব ঠেকাতে রিয়াদের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদারের সাফল্য বলে অভিহিত করেছে।

ইসরাইলের পর্যটনমন্ত্রী ইয়ারিভ লেভিন এক রেডিও সাক্ষাৎকারে বলেছেন, দুই বছর আমরা খুব, খুব নিবীড়ভাবে কাজ করেছি। যার ফলে আজকের এই ঐতিহাসিক দিনটি পেয়েছি।

তিনি বলেন, সৌদি আরবের আকাশসীমা ব্যবহার করায় ভ্রমণের সময় অন্তত দুই ঘণ্টা কমে আসছে। ফলে টিকিটের মূল্যও কমানোর চিন্তা চলছে।

ইসলাম ধর্মের জন্মস্থান বলা হয় সৌদি আরবকে। এখানকার পবিত্র মদীনাতে রয়েছে প্রিয় নবী মুহাম্মদ (সা.)- এর রওজা। আর আরেক পবিত্র নগরী মক্কা মুসলিমদের কিবলা এবং সেখানে প্রত্যেক বছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মুসলিমরা হজের জন্য জমায়েত হন।

বিশ্বের যেসব রাষ্ট্র দখলদার ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়নি সৌদি আরব তাদের অন্যতম। তবে রিয়াদ কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে এয়ার ইন্ডিয়ার ফ্লাইট সৌদি আরবের আকাশসীমা ব্যবহার করেছে, এমন কথা স্বীকার করেনি।

দীর্ঘ ৭০ বছর ইসরাইল থেকে অন্য দেশে কিংবা ইসরাইলগামী বিমানের চলাচলে সৌদি আকাশসীমা ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে এখন পর্যন্ত ইসরাইলি কোনো বিমান সংস্থা আবেদনও করেনি।

এয়ার ইন্ডিয়ার বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার ফ্লাইটটি গ্রিনিচ মান টাইম অনুযায়ী বিকেল পৌনে পাঁচটায় সৌদি আরবের আকাশসীমায় প্রবেশ করে। এরপর ৪০ হাজার ফুট উপরে প্রায় তিন ঘণ্টা সেটি অবস্থান করে।

ফ্লাইটট্রেডার অ্যাপের তথ্যে, রাজধানী রিয়াদ থেকে ৬০ কিলোমিটারের মধ্যে ফ্লাইটটি অবস্থান করেছিল। এরপর সেটি জর্ডান ও দখলকৃত পশ্চিমতীরের ওপর দিয়ে ইসরাইলে প্রবেশ করে।

ফ্লাইটট্রেডারের তথ্য অনুযায়ী, সৌদি আরবের আকাশসীমায় প্রবেশের আগে ভারতীয় ফ্লাইটটি ওমানের ওপর দিয়ে যায়।

ওমান কর্তৃপক্ষ একটি ফ্লাইট যাওয়ার কথা স্বীকার করলেও সেটি যে ইসরাইলগামী ছিল, তা তারা জানে না বলে জানিয়েছে। এমনকি এ বিষয়ে তারা কোনো মন্তব্য করতেও রাজি হয়নি।

তবে ইসরাইলি পতাকাবাহী ইআই এএল অভিযোগ করেছে, তারা সৌদি আরবের রুট থেকে বাদ পড়ার পর ভারতীয় এয়ারলাইন্সটি অবৈধভাবে সুবিধা নিয়েছে।

ইআই এআই সম্প্রতি সপ্তাহে চারবার ভারতের মুম্বাইয়ে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। তারা সৌদি আরবের আকাশসীমা ব্যবহার না করে লোহিত সাগর রুটে ইথিওপিয়া হয়ে এই ফ্লাইট চলে। সাত ঘণ্টা ৪০ মিনিটে মুম্বাই থেকে তেল আবিব যায়।

যদি ইআই এআই উড়োজাহাজটি নয়াদিল্লিতে যেতে চায়, তাহলে তাদের ভাষ্যে, আরও দুই ঘণ্টা বেশি সময় লাগবে এবং সেক্ষেত্রে স্পষ্টতই বাড়তি জ্বালানির যোগান দিতে হবে।

তবে ইসরাইলি আর্মি রেডিওকে সাক্ষাৎকারে দেশটির পর্যটনমন্ত্রী ইয়ারিভ লেভিন জানান, ইআই এআইকেও সৌদি আরবের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হবে।

তিনি বলেন, সবাই জানে, সৌদি আরব বলেছে তারা কোনো ফ্লাইট পাস দেয়নি। সুতরাং দেশটির একটি অনুমতির ব্যাপার কিন্তু আছেই। আমি মনে করি, শেষ পর্যন্ত ইআই এআইও এ অনুমতি পাবে।

সৌদি আরবের রুট ব্যবহার করে অন্য আন্তর্জাতিক এয়ারলাইন্সও যদি তেল আবিবে যেতে চায়, সেটি সম্ভব কিনা, এমন প্রশ্নে ইসরাইলি মন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সঙ্গে আলোচনা চলছে। এছাড়া ফিলিপাইনের একটি এয়ারলাইন্সের সঙ্গেও আলাপ হয়েছে।

ইয়ারিভ লেভিন আরও বলেন, তারা উভয়ে (সিঙ্গাপুর ও ফিলিপাইন) ইসরাইলে বিমানের ফ্লাইট পরিচালনায় আগ্রহী। তবে আমি এখনও নিশ্চিত নই, তারা ভারতীয় বিমান সংস্থার মত সৌদি আরবের অনুমতি পাবে কিনা।

তবে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স ইসরাইলি মন্ত্রীর বক্তব্যের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। একইভাবে সার্বিক বিষয়ে সৌদি আরবের কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ডেইলি বাংলাদেশ/সালি