সৈকতের নাম জলপাই

ঢাকা, শনিবার   ৩০ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭,   ০৬ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

সৈকতের নাম জলপাই

ভ্রমণ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৫২ ৩০ এপ্রিল ২০২০  

বগুরান জলপাই সৈকত

বগুরান জলপাই সৈকত

জলপাই—এটি একটি সমুদ্র সৈকতের নামও বটে। তবে মূল নাম বগুরান জলপাই। ব্যস্ততা ভুলে অসীমের অনুভূতি নিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটিয়ে দেয়া যায় এখানে। একটার পর একটা ঢেউ আসে, যন্ত্রণা-বেদনা ঝাপটার পর ঝাপটায় ধুয়ে-মুছে নিয়ে ফিরে যায় আবার।

সমুদ্র নিয়ে বাঙালির ফ্যান্টাসি অফুরন্ত। সৈকতে গিয়েও অনেক সময় ভিড়ের দেখা মেলে, যা বেশিরভাগ মানুষেরই ভালো লাগে না। মন চায় নির্জন কোনো সৈকতে ছুটি কাটাতে। বগুরান জলপাই সেরকমই এক জায়গা।

নতুন পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে মানুষের মনে দাগ কেটে নিয়েছে জায়গাটি। নিরিবিলি শান্ত পরিবেশ। বিস্তীর্ণ বালুকাবেলা। ঝাউগাছের ঘন অরণ্য। দিঘার মতো বড় নয়, এখানকার সমুদ্রের ঢেউ ছোট। এই সৈকতের আরেক সৌন্দর্য লাল কাঁকড়া। অসংখ্য কাঁকড়া যেন লাল গালিচায় ঢেকে রেখেছে সৈকত।

বগুরান জলপাই থেকে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের দৃশ্যও অসাধারণ। শরীর এবং মনকে নতুন প্রাণশক্তি দেবে নির্মল বাতাস। স্থানীয় মানুষরাও খুব বন্ধুত্বপূর্ণ। জেলেদের সঙ্গে আলাপ করতে পারেন। তাদের সংগ্রহে আছে সমুদ্রের অভিজ্ঞতায় ভরা বেশ কিছু গল্প।

বঙ্গোপসাগরের তীরে এই ছোট্ট গ্রাম। কলকাতা থেকে ১৬৫ কিলোমিটার দূরত্বে এর অবস্থান। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি মহকুমার অন্তর্গত। মোটামুটি চার ঘণ্টার মতো সময় লাগে কলকাতা থেকে এখানে পৌঁছতে। কলকাতা থেকে ট্রেনে অথবা বাসে দিঘা পৌঁছে সেখান থেকে গাড়ি নিয়ে বগুরান জলপাই যেতে পারেন। বগুরান জলপাইতে থাকার জায়গা একটাই—‘সাগর নিরালায় গেস্ট হাউজ’।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে