সেফটিক ট্যাংক থেকে গলিত লাশ উদ্ধার

ঢাকা, সোমবার   ২৪ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ১৯ শাওয়াল ১৪৪০

ছাগলনাইয়ায় নিখোঁজের ৬ দিনপর

সেফটিক ট্যাংক থেকে গলিত লাশ উদ্ধার

ফেনী প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ২২:০০ ১০ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ২২:০০ ১০ জানুয়ারি ২০১৯

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নিখোঁজের ৬দিন পর বৃহস্পতিবার বিকেলে ফেনীর ছাগলনাইয়া থেকে আবুল কালাম (৫২) নামে একজনের গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে উপজেলার রাঁধানগর ইউপির পশ্চিম মধুগ্রাম মিদ্দা বাড়ির মৃত সামছুল হকের ছেলে।

কালামের বোন জরিনা আখতার জানান, গত শুক্রবার (৪ জানুয়ারি) রাত থেকে নিখোঁজ হন ভাই আবুল কালাম। বৃহস্পতিবার ঘরের পাশে দুর্গন্ধ পান তিনি। এসময় পাশের ঘরের সেফটিক টাংকের ঢাকনা সামান্য ফাঁকা দেখতে পান। বিষয়টি এলাকার মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেনকে জানালে তিনি পুলিশে খবর দেন। দুপুরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ও সেফটি টাংকে লাশ দেখতে পেয়ে বিকেলে লাশ উদ্ধার করে। 

ছাগলনাইয়া থানার ওসি এম.এম মুর্শেদ পিপিএম বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। ঘটনার জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য নিহত কালামের স্ত্রী রেখা আক্তার (৪০) ও বড় ছেলে মো. হাসানকে (১৬) আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ফেনী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জরিনা আখতার আরো বলেন, নিহত আবুল কালাম অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য (কুক) ছিলেন। তিনি তিনটি বিয়ে করেছেন। ১ম স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছেদ হওয়ায় রেখা আক্তারকে দ্বিতীয় বিয়ে করে ও শেষে ঢাকার এক গার্মেন্টস্ কর্মীকে বিয়ে করেন। বর্তমানে ২য় স্ত্রী রেখার সঙ্গে বাড়িতে বসবাস করেন। গত দু’বছর আগে আবুল কালাম স্ট্রোক করার পর থেকে স্বাভাবিক আচরণ করতেন না। রাতে ঠিকমতো ঘুমাতেন না। গত শুক্রবার মাগরিবের নামাজের পর থেকে তিনি নিখোঁজ হন। সব আত্মীয়-স্বজনেরর বাড়িতে খোঁজ করেও খোঁজ মেলেনি। তবে থানায় ডাইরি করার বিষয়টি আমাদের স্মরণে ছিলো না। নিখোঁজের দিন দুপুরে আবুল কালামের স্ত্রী রেখা আক্তার, ৩ ছেলে ও ১ মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যায়।  

ফেনীর সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) নিশান চাকমা বলেন, এ হত্যার পেছনে কে বা করা জড়িত তাদের দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষ  আইনের আওতায় আনা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে/এলকে