সেই ব্যবসায়ীকে নির্যাতনের ঘটনায় চার পুলিশ বরখাস্ত
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=112183 LIMIT 1

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৩ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ৩০ ১৪২৭,   ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

সেই ব্যবসায়ীকে নির্যাতনের ঘটনায় চার পুলিশ বরখাস্ত

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:১১ ১৬ জুন ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়া সদর থানায় এক ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগে চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। শনিবার রাতে এসপির নির্দেশে তাদের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেয়া হয়।

ব্যবসায়ীকে কৌশলে ডেকে নিয়ে ২৪ ঘণ্টা নির্যাতন

বরখাস্ত হওয়া পুলিশ সদস্যরা হলেন- এসআই আব্দুল জব্বার, এএসআই নিয়ামত উল্লাহ, এএসআই এরশাদ হোসেন ও কনস্টেবল এনামুল হক।

নির্যাতনের শিকার সোহান বাবু আদর শহরের সুলতানগঞ্জপাড়া উটের মোড় এলাকার সাইদুর রহমানের ছেলে। তিনি বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

বগুড়ার অ্যাডিশনাল এসপি (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত চারজনের নাম আসায় তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের পুলিশ লাইনে পাঠানো হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার বাবু ও তার বড় বোন শম্পা জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে থানার কনস্টেবল (মুন্সী) এনামুল হক মোবাইল ফোনে বাবুকে থানায় আসতে বলেন। থানায় এলে তাকে হাজতে আটকে রাখা হয়। খবর পেয়ে তার বোন রাতেই থানায় গেলে জানানো হয়, একই এলাকার সাথী বেগম তার মেয়েকে ইভটিজিং ও পাওনা টাকা না দেয়ার অভিযোগ করেছেন।

সোহান বাবু আদর জানান, বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার রাত ১১টা পর্যন্ত কনস্টেবল এনামুল, এসআই জব্বার এবং নাম না জানা একজন তাকে কখনো ঝুলিয়ে আবার কখনো হ্যান্ডকাপ দিয়ে হাত বেঁধে নির্যাতন করেছেন। নির্যাতনের কারণে তিনি কয়েকবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। শুক্রবার রাতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে থানা থেকেই তার বাবা ও বোনকে ডেকে আনা হয়। এরপর তাদের কাছ থেকে কয়েকটি সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর