সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরল সেই বীথিকা

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৭ ১৪২৬,   ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরল সেই বীথিকা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৪:৪০ ২৮ মে ২০১৯   আপডেট: ০৮:৫০ ২৮ মে ২০১৯

ঠাকুরগাঁওয়ে ১২ বছর বয়সী শিশুর পেটে থাকা টিউমারের ভেতর থেকে অপর এক শিশুর অংশ অস্ত্র শেষে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য হয়ে বাসায় ফিরেছে বিথীকা রায়। রোববার ঠাকুরগাও হাসান এক্সরে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে তাকে ছাড়পত্র দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিশু সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নুরুজ্জামান জুয়েল। বীথিকা সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে যাওয়ায় খুশি তার মা, বাবা, চিকিৎসক ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার রহিমানপুর গোয়ালপাড়া এলাকার বাবুল রায়ের ১২ বছর বয়সী মেয়ে বিথীকা রায় তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষাথী। বেশ কিছুদিন থেকেই শিশুটির মধ্যে কিছু শারীরিক পরিবর্তন লক্ষ করেছিলেন পরিবারের সদস্যরা। পেট ফুলে যাওয়াসহ মাঝেমধ্যে পেটে ব্যাথ অনুভব করলে তার মা বাবা চিকিৎসকের কাছে নিয়ে আসেন। চিকিৎসক পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে জানান, শিশুটির পেটে বড় আকারের টিউমার রয়েছে। এরপর গত শুক্রবার রাতে অস্ত্রোপরারের মাধ্যমে শিশুটির পেট থেকে প্রায় চার কেজি ওজনের একটি টিউমার বের করা হয়। টিউমারটি দেখতে অস্বাভাবিক হওয়ায় কৌতুল জাগে চিকিৎসকের। পরে টিউমারটি কেটে এর ভেতর আরেকটি শিশুর শরীরের অংশবিশেষ দেখতে পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে চিকিৎসক নুরুজ্জামান জুয়েল বলেন, ডাক্তারি ভাষায় এ ধরনের রোগকে ‘ফেটাস ইন ফেটু’ বলে। শিশুটির মায়ের পেটে দুটি বাচ্চা একসঙ্গে ছিল। কিন্তু মায়ের পেটে থাকা অবস্থায়ই একটি বাচ্চা আরেকটির পেটে ঢুকে যায়। ফলে একটি বাচ্চা স্বাভাবিকভাবে ভুমিষ্ট হয়। আর তার পেটের ভেতর ঢুকে যাওয়া অন্য বাচ্চাটি আস্তে আস্তে বড় গতে থাকে। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমরা বাচ্চাটির সফল অস্ত্রোপচার করতে পেরেছি। শিশুটি বর্তমানে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে যাচ্ছে। এতে আমরা চিকিৎসরা অনেক খুশি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম