Alexa সুরের মূর্ছনায় নেট দুনিয়া মাতাচ্ছেন কলসি মিজান

ঢাকা, বুধবার   ২০ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৫ ১৪২৬,   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

গানের গুরু রেডিও, হুবহু গাইতে পারেন ৭০০ গান

সুরের মূর্ছনায় নেট দুনিয়া মাতাচ্ছেন কলসি মিজান

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৩৪ ২৩ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৫:৪৫ ২৩ অক্টোবর ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

নাম মিজানুর রহমান। এলাকার মানুষের কাছে কলসি মিজান নামেই বেশি পরিচিত। চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহর থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে গোমস্তাপুর উপজেলার নন্দলালপুর গ্রামে তার বাড়ি। মা-বাবাহীন এই দুনিয়াটা আক্ষরিক অর্থেই তার কাছে অন্ধকারই। জন্ম থেকেই চোখে দেখেন না তিনি।

আর্থিক অনটন আর চোখের আলো নেই বলে শিক্ষার আলোয় আলোকিত হওয়ার সুযোগ আর হয়ে উঠেনি তার। ৩০ বছর বয়সী এই যুবকের বর্তমানে বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন গানের গলা। সৃষ্টিকর্তার দেয়া এই প্রতিভাকে ব্যবহার করছেন তিনি জীবিকা নির্বাহের অবলম্বন হিসেবে। গান গেয়েই তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন।

খুব ছোটবেলায় পেটের দায়ে বাদাম বিক্রি শুরু করেন। ক্রেতা আকর্ষণে দাঁড়িপাল্লা-বাটখারা বাজিয়ে গান গাওয়া শুরু করেন। তারপর একসময় বদনা বাজিয়ে গান করতেন। এখন হাটে-বাজারে গান করে বেড়ান কলসি বাজিয়ে। গান গাইতে অদ্ভুত সব জিনিস ব্যবহার করেন কেন জানতে চাইলে তিনি জানান দৃষ্টি আকর্ষণেই তার এই পন্থা অবলম্বন। মাঝে মাঝে এলাকায় কোনো বিয়ের অনুষ্ঠান হলে তার ডাক পড়ে। বিনিময়ে মিলে কয়েক মুঠো চাল। অনেক সময় ওষুধ বিক্রির জন্য ক্রেতা আকর্ষণে বিক্রেতারা তাকে অল্প টাকায় ভাড়া করে নিয়ে যায়।

শুনে আশ্চর্য হবেন তার গানের গুরুর নাম শুনে! তার গানের গুরু রেডিও। রেডিওতে শুধু গান শুনেই গান গাওয়ার অসাধারণ এক সুপ্ত প্রতিভাকে জাগিয়ে তুলেছেন তিনি। রাতে রেডিওতে গান শুনে শুনে তিনি সেগুলাকে আয়ত্ত করে পরের দিন সেই গানগুলো গেয়ে বেড়াতেন। সুবীর নন্দী, আবদুল আলীম, আব্দুল জাব্বার, এন্ড্রু কিশোরসহ বিভিন্ন শিল্পীর প্রায় সাড়ে ৭০০ গান হুবহু গাইতে পারেন। মাঝে মাঝে তিনি নিজের জীবনের করুণ কাহিনীও সুরে সুরে তুলে ধরেন।

মিজানের চোখের আলো না থাকলেও আছে সুরের যাদু। জীবিকার তাগিদে হলেও তার এই অসাধারণ প্রতিভা সত্যিই বিস্ময়!

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ