.ঢাকা, সোমবার   ২৫ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ১০ ১৪২৫,   ১৮ রজব ১৪৪০

সুন্দরবনের বাঘ সিলেটের সড়কে

সিলেট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ

 প্রকাশিত: ১৩:৫৮ ৭ মার্চ ২০১৮   আপডেট: ১৩:০০ ৬ মার্চ ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সুন্দরবনের বাঘ দেখা গেছে সিলেটের সড়কে।

বিমানবন্দর সড়কে মঙ্গলবার রাতে বাঘটি দেখা যায়। পরদিন থেকেই বাঘটির সন্ধানে নেমেছে বন বিভাগ।

বিচ্ছিন্ন পায়ের ছাপ। তারপর সারিবদ্ধ কিছু ছাপ। সবশেষে ঘাড় মটকানো অবস্থায় একটি গরু পাওয়া যায় মালনীছড়া চা বাগানে।

এর পর থেকেই শুরু নানা শঙ্কা-আতঙ্ক।

নগরের উত্তর-পশ্চিমে ১ হাজার ৫০০ একর জায়গাজুড়ে মালিনীছড়া চা-বাগানের অবস্থান। বাগান ছাড়াও আছে রাবার বাগানের ঘন বন। ১৮৫৪ সালে স্থাপিত বাগানটি উপমহাদেশের প্রথম চা-বাগান। সিলেটে বেড়াতে আসা পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণের এই চা-বাগানের সরু পথে গত ২০ ফেব্রুয়ারি প্রথম বাঘের পায়ের ছাপ দেখা যায়। এরপর আরেক দফা পায়ের ছাপ অনেকটা স্পষ্টভাবে দেখা গেলে বিষয়টি বন বিভাগকে জানানো হয়। গত বুধবার পায়ের ছাপের সঙ্গে গবাদিপশুর ঘাড় মটকানো অবস্থা দেখে চা-শ্রমিকসহ বন বিভাগের কর্মীরা বাঘ বলে নিশ্চিত হন।

বাঘের গতিবিধি জানতে সিলেট শহরতলির মালিনীছড়া চা-বাগান এলাকায় নাইট ভিশন ক্যামেরা স্থাপন করেন বন বিভাগের কর্মকর্তারা। ছবি: সংগৃহীত

সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) আরএসএম মুনিরুল ইসলাম বলেন, বাঘের গতিবিধি জানতে মালিনীছড়া চা-বাগান এলাকায় নাইট ভিশন ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

এরই মধ্যে রাতে বাঘ দেখা পাওয়ার খবর আসে। আমাদের একটি টিম মাঠে কাজ শুরু করেছে বলেও জানান তিনি।

নানা প্রজাতির বাঘ চা-বাগানের ঘন বনে আছে-এমনটি অতীতে শোনা গেলেও তিন দশক ধরে আর শোনা যায়নি বলে বন বিভাগ সূত্র জানায়। ১৯৬০ সালে হবিগঞ্জের রেমা-কালেঙ্গা ও মধুপুরে চিতা বাঘের বিচরণ দেখে শিকারও হয়েছিল। ১৯৮৮ ও ৯০ সালে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার সাগরনাল, রত্না এলাকায় কয়েকটি গরুর ঘাড় মটকানো দেখে ধারণা করা হয়েছিল, ওই এলাকার চা-বাগান ও ঘন বনে চিতা বাঘ আছে।

কিন্তু দেখা পাওয়া বাঘটি রয়েল বেঙ্গল টাইগার বলে ধারণার কথা বলেন বন বিভাগের এ কর্মকর্তা

২০০৯ সালে সিলেটের কানাইঘাটের লোভাছড়া চা-বাগান এলাকায় জ্যান্ত ধরা পড়েছিল বিরল প্রজাতির কালো বাঘ। এলাকাবাসী জীবিত বাঘ ধরতে ফাঁদ পেতে কালো বাঘ আটক করে বন বিভাগে দিয়েছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআর/আরআর