Alexa সুনাম ছড়ানো মাদরাসার এ কি হাল!

ঢাকা, শনিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১৬ ১৪২৬,   ০৫ রজব ১৪৪১

Akash

সুনাম ছড়ানো মাদরাসার এ কি হাল!

আব্দুর রাজ্জাক, ঘিওর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৩১ ২০ জানুয়ারি ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার সুনাম ছড়ানো সাহেব আলী খান মহিলা দাখিল মাদরাসা আজ বন্ধের পথে। জাতীয়করণ না হওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা।

জানা গেছে, ২০০৪ সালে ঘিওরের কুস্তা গ্রামে ১৩০ একর জমির উপর মাদরাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন লন্ডন প্রবাসী ডা. আব্দুর রহিম খান। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মানসম্মত শিক্ষা ও আধুনিক সুযোগ সুবিধায় সুনাম অর্জন করে মাদসারাটি। কিন্তু প্রতিষ্ঠাতার মৃত্যুর পর প্রতিষ্ঠানটির অবস্থা শোচনীয় হয়ে পড়ে।

বর্তমানে মাদরাসাটিতে দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ২৫০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। এছাড়া ১৪ জন শিক্ষকের পাশাপাশি দুইজন কর্মচারী রয়েছেন। কিন্তু ফান্ড না থাকায় বেতন পাচ্ছেন না তারা। এতে ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। শিক্ষার্থীদের বেঞ্চ নেই, ক্লাসরুমের চেয়ার-টেবিল, দরজা-জানালা ভাঙা। এতকিছুর পরও সর্বশেষ পাবলিক পরীক্ষায় আলী খান মহিলা দাখিল মাদরাসার পাসের হার শতভাগ।

মাদরাসার সুপার হযরত মাওলানা আবুল হোসেন জানান, দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন বন্ধ। এতে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। তবু শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রচেষ্টায় সুনাম অক্ষুণ্ন রয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে মাদরাসাটি জাতীয়করণ করা না হলে শিক্ষকদের অবস্থার উন্নতি হবে না।

মাদরাসা পরিচালনা পরিষদের সভাপতি এ.কে.এম সারোয়ার কিরণ খান জানান, প্রতিষ্ঠার ১৬ বছর পরও জাতীয়করণ না হওয়ায় সাহেব আলী খান মহিলা দাখিল মাদরাসার শিক্ষকরা সব সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। পরিবার নিয়ে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। দ্রুত এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর