.ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১০ ১৪২৬,   ১৭ শা'বান ১৪৪০

সুনামগঞ্জ-৩ আসনে প্রার্থিতা নিয়ে প্রতিযোগিতা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৬:৫৩ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:২১ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সুনামগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপির একক মনোনীত প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হলেও ঐক্যফ্রন্টের তিন নেতার মনোনয়ন বৈধ হয়েছে। ইসির আপিলে প্রার্থিতা ফিরে না পেলে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীই বিএনপির শেষ ভরসা। ফ্রন্টের তিন হেভিয়েট প্রার্থী থাকায় রয়েছে প্রতিযোগিতা।

প্রার্থীরা হচ্ছেন- গণফোরামের প্রার্থী নজরুল ইসলাম, ইসলামী ঐক্যজোটের সৈয়দ আলী আহমদ, জমিয়তের উলামার শাহিনূর পাশা চৌধুরী।

এ আসনে বিএনপির মনোনয়ন সংগ্রহ করেন ১০ প্রত্যাশী। তবে যুক্তরাজ্য বিএনপির কোষাধক্ষ এম এ ছাত্তারকে বিএনপি একক প্রার্থী মনোনীত করে। তবে যাচাই-বাছাইকালে প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়। আপিল করলেও শঙ্কায় রয়েছে বিএনপি প্রার্থী।

গত তিন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটের প্রার্থী ছিলেন জেলা জমিয়তে উলামার সভাপতি মাওলানা শাহিনূর পাশা চৌধুরী। এবারও তিনি ছিলেন চূড়ান্ত। কিন্তু ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ফ্রন্টের সঙ্গে বিএনপি যোগ দেয়ায় সমীকরণ পাল্টে গেছে। গণফোরামে যোগ দিয়েই সাবেক কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম এই আসনটিতে ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন দাবি করছে।

জেলা বিএনপির সহ সভাপতি কর্নেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ দলীয় মনোনয়ন চান। দীর্ঘদিন মাঠে থেকেও মনোনয়ন না পাওয়ায় যোগ দেন ঐক্যফ্রন্টের শরিক ইসলামী ঐক্যজোটে। তাকে প্রার্থী করতে ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছেন ঐক্যজোট নেতারা। তিন দল প্রার্থী দিতে জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে তোড়জোড় করছে। ফ্রন্টের প্রার্থীতা না পেলে নিজ দলের প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছে শাহিনূর পাশা ও সৈয়দ আলী আহমদ।

জমিয়তের উলামার বাংলাদেশ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা তৈয়বুর রহমান চৌধুরী বলেন, এ আসনে ২০০১ সাল থেকে আমরা মনোনয়ন পেয়ে আসছি। আমাদের নিজস্ব ভোট ব্যাংক আছে। আওয়ামী লীগের ঘাঁটি আমরাই ভেঙ্গেছি।

গণফোরামের প্রার্থী নজরুল ইসলাম বলেন, মনোনয়নের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদি। বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা আমাকে নির্বাচন করতে বলেছেন। ঐক্যফ্রন্টের যেকোন সিদ্ধান্ত মেনে নেব।


ইসলামী ঐক্যজোট জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা ইসহাক আমিনী বলেন, আমাদের জোট এবং ফ্রন্টের নেতাদের কাছে দুটি আসন চেয়েছি। এর মধ্যে সুনামগঞ্জ-৩ একটি। সৈয়দ আলী আহমদ একজন জিয়ার সৈনিক, নির্বাচনী মাঠে খুব শক্তিশালী প্রার্থী। প্রার্থীতা আনতে জোর চেষ্টা চালাচ্ছি।

জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, আসনটিতে প্রার্থিতা নিয়ে প্রতিযোগিতা আছে। বিএনপি প্রার্থী শূন্য হলেও ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে যাকে মনোনয়ন দেয়া হবে, তার পক্ষেই নেতাকর্মীরা কাজ করবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ