সুনামগঞ্জ সদরে বইছে আনন্দ

ঢাকা, বুধবার   ২৬ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১৩ ১৪২৬,   ২২ শাওয়াল ১৪৪০

সুনামগঞ্জ সদরে বইছে আনন্দ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৯:২৮ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৯:২৮ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সুনামগঞ্জ সদরে রেলওয়ে সংযোগের জন্য সম্ভাব্য সমীক্ষা ও ডিজাইন নিয়ে কাজ শুরু করেছে মন্ত্রণালয়। এ খবরে জেলার জনসাধারণের মধ্যে বইছে আনন্দ।

প্রথমে সমীক্ষা প্রকল্পের আওতায় এনভায়রনমেন্টাল ইমপ্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট, এনভায়রনমেন্টাল ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান ও এনভায়রনমেন্টাল মনিটরিং প্ল্যান করা হবে।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগ সুনামগঞ্জ রেলওয়ে সংযোগে সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও বিশদ ডিজাইন শীর্ষক প্রকল্পের প্রস্তাব করেছে রেলওয়ে মন্ত্রণালয়।

প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে এক বছরে সমীক্ষা সম্পন্ন করে মূল প্রকল্প হাতে নেবে সরকার। প্রাথমিক টপোগ্রাফিক সার্ভে অনুযায়ী ছাতক থেকে সুনামগঞ্জ পর্যন্ত রুটের দৈর্ঘ্য ২৭ থেকে ২৮ কিলোমিটার রেলপথ নির্মাণে সম্ভাব্যতা যাচাই করা হবে। পরে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ হলে বৃত্তাকার রেলপথ হবে।

নিজাম উদ্দিন, মাসুক মিয়া, রায়হান উদ্দিন রিপন ও জুমুর তালুকদার বলেন, ছাতক থেকে সুনামগঞ্জ রেল লাইন সম্প্রসারণ আমাদের র্দীঘ দিনের দাবি। আজ বাস্তবে রুপ দিতে যাচ্ছে সরকার। হাওরবাসী অনেক খুশি। রেললাইন সম্প্রসারিত হলে হাওরবাসীর জীবনযাত্রা পরির্বতন হবে। রাজধানীর সঙ্গে সহজে যোগাযোগ সৃষ্টি হবে। সুনামগঞ্জকে ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে যুক্ত করতে রেললাইন সম্প্রসারণ বিষয়টি বিশেষ আলোচনায় রয়েছে। সেই অনুযায়ী কাজ চলছে। দ্রুত িএ রেললাইনের কাজ শুরু করার দাবি জানাই।

পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, হাওরকে জাতীয় উন্নয়নে যুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। ছাতক-সুনামগঞ্জ রেললাইন সড়ক নির্মাণ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর গ্রিন সিগন্যাল পেয়েছি। মোহনগঞ্জ-সুনামগঞ্জ রেললাইনও আমরা এই মেয়াদে বাস্তবায়ন করবো।

এ প্রজন্ম যেন সহজে রাজধানী সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে। হাওরবাসীসহ আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন এলাকায় রেলপথ নির্মাণ করা। অবশেষে উদ্যোগ নিতে যাচ্ছি। প্রথমে রেলপথ ছাতক থেকে সুনামগঞ্জ সদর পর্যন্ত। পরে সুনামগঞ্জ জেলার সঙ্গে নেত্রকোনা ও ময়মনসিংহের রেলপথ যুক্ত করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ