Alexa সিইও পদই পছন্দ মারিসা মেয়ারের

ঢাকা, শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২৮ ১৪২৬,   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

সিইও পদই পছন্দ মারিসা মেয়ারের

 প্রকাশিত: ১৭:৫৪ ২২ জুলাই ২০১৭  

ভেরাইজনের ইয়াহু অধিগ্রহণ চুক্তি চূড়ান্ত হওয়ার আগেই পদ ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মারিসা মেয়ার। তিনি নতুন কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে চান এবং অবশ্যই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে। গত মঙ্গলবার ফরচুন ব্রেইনস্ট্রম টেক কনফারেন্স ইন অ্যাস্পেন শীর্ষক এক সম্মেলনে এমন আশাবাদই ব্যক্ত করেছেন তিনি। খবর বিজনেস ইনসাইডার। বর্তমানে সিইও সংকটে রয়েছে অ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সি সেবাদাতা উবার। ট্র্যাভিস কালানিকের পদত্যাগের পর নতুন সিইও খুঁজছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। মারিসা মেয়ার উবারের সিইওর দায়িত্ব পেতে পারেন এমনটা শোনাও যাচ্ছিল। কিন্তু এ বিষয়ে সরাসরি কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি মেয়ারের কাছ থেকে। উবারের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে তার সঙ্গে কোনো আলোচনা হয়েছে কিনা তা জানা যায়নি। বলা হচ্ছে, মারিসা মেয়ার ও উবার উভয়ই একই সংকটে রয়েছেন। এক্ষেত্রে একটি কার্যকর সমাধান আশা করা যেতেই পারে। উবার প্রতিষ্ঠাতা এবং সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ট্র্যাভিস কালানিককে নিয়ে এর আগে নেতিবাচক আলোচনা শুরু হলে তার পক্ষে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে দেখা গেছে মেয়ারকে। তিনি বলেছিলেন, ট্র্যাভিস আমার ভালো বন্ধু। আমি মনে করি সে একজন বিস্ময়কর সিইও। তারই নেতৃত্বে উবার বর্তমান অবস্থানে এসেছে এবং এর সেবা সত্যিই চমত্কার। উবার সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি খারাপ ঘটনার সম্মুখীন হয়েছে। এগুলো হলো, কিছু ভুল সিদ্ধান্ত, যৌন হয়রানি এবং বিভিন্ন কেলেঙ্কারির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ২০ জন কর্মীকে তাত্ক্ষণিক ছাঁটাই করা। এছাড়া অনলাইনে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে একজন উবার চালকের সঙ্গে খুব খারাপভাবে তর্ক করতে দেখা যায় ট্র্যাভিস কালানিককে। এসব ঘটনা নিয়ে সমালোচনা শুরু হলে তিনি সিইওর পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তবে এখনো উবারের সিংহভাগ শেয়ারের মালিকানায় রয়েছেন কালানিক। কাজেই নতুন সিইও যেই আসুক, তার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখেই চলতে হবে। ডেইলি বাংলাদেশ/আরকে