সিংগাইরে ইটভাটায় করোনা-ঝুঁকিতে ২০ হাজার শ্রমিক  

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭,   ০২ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

সিংগাইরে ইটভাটায় করোনা-ঝুঁকিতে ২০ হাজার শ্রমিক  

সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৫৭ ১ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১৮:৪৫ ৫ এপ্রিল ২০২০

সিংগাইরে ইটভাটায় করোনা-ঝুঁকিতে ২০ হাজার শ্রমিক  

সিংগাইরে ইটভাটায় করোনা-ঝুঁকিতে ২০ হাজার শ্রমিক  

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে শতাধিক ইটভাটায় কাজ করছেন প্রায় ২০ হাজার শ্রমিক। এতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।   

মালিকরা কোন প্রকার প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা না নিয়ে ইটভাটা চালু রেখেছেন। শ্রমিকরা দলবেঁধে কাজ করা ছাড়াও একসঙ্গে থাকা ও  প্রকাশ্যে ঘোরাফেরার কারণে দ্রুত করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে জানা গেছে। 

শ্রমিক সর্দার কাসেম আলী বলেন, কোম্পানী ছুটি দিচ্ছে না। বাধ্য হয়ে কাজ করছি।   

শ্রমিকদের রান্নার কাজে নিয়োজিত রেশমী বলেন, ৬ মাস যাবত কাজ করছি। কোন ছুটি নেই। নারী শ্রমিক শিল্পী বলেন, গরীব মানুষ, কাম না থাকলে খামু কি! 

আরইপি ব্রিকসের ম্যানেজার সোহরাব হোসেন জানান, সিংগাইরের কোন ভাটাই বন্ধ হয়নি। দেশে লকডাউন চলছে। শ্রমিকরা বাড়ি যাবে কিভাবে? আর খাবেই বা কি?

মাটিকাটা ও ইটভাটা প্রতিরোধ কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জি. আবু সায়েম অভিযোগ করে বলেন, এ বিপর্যয়ের মধ্যেও ভাটা মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে নেই সচেতনতা। কাজের ফাঁকে অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে স্থানীয় হাট-বাজার ও লোকালয়ে। এতে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি। দ্রুত ইটভাটাগুলো বন্ধের দাবি জানান তিনি।

ইটভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও এএবি ব্রিকসের স্বত্তাধিকারী মো. আব্দুল কুদ্দুস বলেন, শিগগিরই বন্ধ হবে ইটভাটা।     

সিংগাইর ইউএনও রুনা লায়লা বলেন, ইটভাটা বন্ধের সরাসরি নির্দেশনা না থাকলেও ৫ জনের অধিক লোক এক জায়গায় জড়ো না হওয়ার নির্দেশ রয়েছে।  ইটভাটা বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ/