Alexa সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মিডিয়া সেল হবে

ঢাকা, সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৫ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মিডিয়া সেল হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক :: staff-reporter

 প্রকাশিত: ২০:০০ ১ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ২০:০০ ১ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মো. মনিরুল ইসলাম বলেছেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গুজব ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির আশঙ্কা রয়েছে। তাই যেকোনো ধরনের গুজব বন্ধ ও তথ্য সংগ্রহ করতে সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মিডিয়া সেল করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় গুজব সহিংসতা প্রতিরোধে সম্প্র্রচার মাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

মনিরুল ইসলাম বলেন, সারাদেশে মনিটরিং সেল গঠন করা হচ্ছে। সেখান থেকে গণমাধ্যম তথ্য পাবে। সব মিলিয়ে আগামী নির্বাচন যেন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয় সে ব্যাপারে কাজ করা হচ্ছে। 

মনিরুল বলেন, গুজব দু’রকম হয়। এক, ইনোসেন্ট গুজব। এ রকমের গুজবে দেখা যাচ্ছে- চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেন কিংবা এটিএম শামসুজ্জামান, নায়ক রাজ্জাক মারা গেছেন। যদিও তা সত্য নয়। এতে করে সহিংসতার সম্ভাবনা নেই। আরেক ধরনের গুজব হচ্ছে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বা ইনটেনশনালি মিথ্যে তথ্য প্রচার করা। এটাই আমরা চ্যালেঞ্জ হিসেবে বিবেচনা করছি। এর উৎসগুলো যদি খুঁজি, দেখবো- ডিজিটাল যুগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফেইসবুক টুইটার ও ইউটিউবের মাধ্যমে। আরেকটা হলো অনলাইন নিউজ পোর্টাল।

কাউন্টারর টেরোরিজম প্রধান বলেন, বিগত দিনে দেখেছি- গুজবের কারণে অনেক সময়ই সহিংসতা ও নৃশংস ঘটনা ঘটেছে। পরে দেখা গেছে তা সিস্টেমেটিক উপায়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে প্রচারের চেষ্টা ছিল। সাঈদীকে চাঁদে দেখা গেছে। এমন গুজব প্রচার করে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চলছে। এমন তথ্য যাচাই করার ব্যবস্থা গণমাধ্যমে থাকা উচিত। সিএনই, চিফ রিপোর্টার কিংবা সম্পাদক ফিল্টারিং করবেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা কিন্তু ভোটকেন্দ্রের ভেতরে ছবি তুলতে দেবেন না। কারণ নির্বাচন কমিশনের আচরণবিধি সংক্রান্ত নির্দেশনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে আপনি যা দেখবেন তাই বলতে পারেন। কিন্তু মনগড়া কিছু বলতে পারবেন না। আর কোনোভাবে প্রত্যাশা করা ঠিক হবে না যে, সব পুলিশ ঠিক করে দেবে। মানুষের একটা মনস্তাত্বিক দিক হচ্ছে গুজব বা মিথ্যা তথ্য বিশ্বাস করা। যিনি যা ভাবছেন সেরকম কিছু পেলেই তা প্রকাশ করছেন সোস্যাল মিডিয়ায়।

এ সময় গুজব রোধে গণমাধ্যমকেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ/টিআরএইচ

Best Electronics
Best Electronics