সাবমেরিনে শারীরিক সম্পর্ক! তারপরে যা ঘটলো...

ঢাকা, সোমবার   ২৪ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ১৯ শাওয়াল ১৪৪০

সাবমেরিনে শারীরিক সম্পর্ক! তারপরে যা ঘটলো...

মজার খবর ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৩৫ ১২ জুন ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সাবমেরিনে সহকর্মীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করায় এক নারী কর্মকর্তাকে ওই সাবমেরিন থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

দ্য মেট্রোর প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই নারী কর্মকর্তা হলেন সাব-লেফটেন্যান্ট রেবেকা এডওয়ার্ডস। তিনি ব্রিটিশ রয়্যাল নেভির এইচএমএস ভিজিল্যান্ট সাবমেরিনের অস্ত্র প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সাবমেরিনটি উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরে কমান্ডার স্টুয়ার্ট আর্মস্ট্রং (৪১) এর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন রেবেকা।

বিষয়টি বুঝতে পেরে অন্য কর্মকর্তারা তাদের শাস্তির দাবিতে পদত্যাগের হুমকি দেন। এ ঘটনায় গত মাসে স্টুয়ার্টকে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রয়্যাল নেভিতে সাবমেরিনের ক্রুদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক একদম নিষিদ্ধ। সাবমেরিনে মূলত ‘কোনো স্পর্শ নয়’ নীতি অনুসরণ করা হয়। তবে এই নিষেধাজ্ঞা একটু শিথিল হলে ২০১১ সাল থেকে নারীরা সাবমেরিনে কাজ করার সুযোগ পান।

যুক্তরাজ্যের রয়্যা ল নেভির একটি সূত্র জানিয়েছে, রেবেকা এডওয়ার্ডস সাবমেরিনে তার কমান্ডারের সঙ্গে শারীরিক সংসর্গের কথা স্বীকার করেছেন। সাবমেরিনে যা ঘটেছে, তা খুবই খারাপ হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। তবে দোষ প্রমাণিত হলে কমান্ডিং কর্মকর্তাদের মতো তার কঠোর শাস্তি হবে না বলে জানা গেছে।

যুক্তরাজ্যের কাছে ভ্যানগার্ড শ্রেণির চারটি পারমাণবিক অস্ত্রসমৃদ্ধ সাবমেরিন রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো এইচএমএস ভিজিল্যান্ট। নিয়মিত টহলে থাকা সাবমেরিনটি যুক্তরাজ্যকে যেকোনো ধরনের পারমাণবিক অস্ত্রের হুমকি থেকে সুরক্ষা দিতে সক্ষম।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ