Alexa সাধারণই হবে ৪১তম বিসিএস, এরপর বিশেষ

ঢাকা, শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২৮ ১৪২৬,   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

সাধারণই হবে ৪১তম বিসিএস, এরপর বিশেষ

সাইফুল ইসলাম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৫৬ ২৩ আগস্ট ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

৪১তম বিসিএস পরীক্ষা সাধারণ হবে নাকি বিশেষ হবে তা নিয়ে দ্বিধায় ছিল বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)। কলেজগুলোতে শিক্ষক নিয়োগের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে পিএসসির কাছে বিশেষ বিসিএস আয়োজন করার অনুরোধ ছিল। তবে বিশেষ বিসিএস আয়োজনের জন্য যথেষ্ট প্রস্তুতি না থাকায় ৪১তম বিসিএস সাধারণই হবে বলে জানিয়েছেন কমিশনের কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পিএসসির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, ৪১তম বিশেষ বিসিএস আয়োজনের ইচ্ছে থাকলেও প্রস্তুতি ঘাটতি থাকায় সেটি সম্ভব হচ্ছে না। এবারের বিসিএস সাধারণই হবে। সরকারি কলেজগুলোতে শিক্ষক নিয়োগের জন্য এর পরপরই বিশেষ বিসিএসের প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করার জন্য পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি বলেন, ৪১তম বিসিএসকে সাধারণ ধরেই সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। এখন হুট করেই এটিকে বিশেষ করে ফেলা যাবে না। তার জন্য পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি প্রয়োজন। এই বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর বিশেষ বিসিএসের প্রস্তুতি জোরেশোরে শুরু করবে কমিশন।

তিনি জানান, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ৪১তম বিসিএস পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। 

এদিকে, সরকারি কলেজগুলোতে শিক্ষক সংকট নিরসনে শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে পিএসসিতে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের কলেজ শাখার পরিচালক শাহেদুল খবির বলেন, আমরা সরকারি কর্ম কমিশনের কাছে আমাদের চাহিদা পাঠিয়েছি। বিষয় ভিত্তিক শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার জন্য ওরা একটি বিশেষ বিসিএস আয়োজন করবে কারণ সারাদেশে কলেজগুলোতে প্রায় ২ হাজার প্রভাষক পদ শূন্য রয়েছে। অধ্যাপক সহকারি অধ্যাপক মিলিয়ে শূন্য থাকা পদের সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে। এদের শূন্যস্থান পূরণ করতে হবে।

এই পরিপ্রেক্ষিতে পিএসসি সূত্রে জানা যায়, বিশেষ বিসিএস পরীক্ষা আয়োজন করতে হলে বিধিমালা সংশোধনসহ যাচাই-বাছাই কার্যক্রম করতে ছয় মাস প্রয়োজন হয়। ফলে ৪১তম বিসিএস সাধারণ হিসেবে আয়োজন করে ৪২তম বিসিএসকে বিশেষ বিবেচনা করা হবে।

এদিকে ৪১ তম বিসিএস পরীক্ষা আয়োজনের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে ২ হাজার ১৩৫টি শূন্য ক্যাডার পদের চাহিদা দেয়া হয়েছে। যেখানে প্রশাসন ক্যাডারে ৩২৩ জন, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ২৫ জন এবং পুলিশ ক্যাডারে সহকারী পুলিশ সুপার পদে ১০০ জন নিয়োগ পাবেন।

এছাড়াও শুল্ক ও আবগারিতে ২৩টি, কর ক্যাডারে ৬০টি, আনসারে ২৩টি, নিরীক্ষা ও হিসাব ক্যাডারের ২৫টি, সমবায় ক্যাডারের ৮টি, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা পদে ১২টি, তথ্য ক্যাডারে ৪৭টি, বিসিএস কৃষি ক্যাডারের ১৮৯টি, বাণিজ্য ক্যাডারের সহকারী নিয়ন্ত্রকের ৪টি, স্বাস্থ্য ক্যাডারের সহকারী সার্জন, ডেন্টাল সার্জনের ১৪০টি পদে নিয়োগ দেয়ার সুপারিশ করা হবে।

৪১তম বিসিএস সাধারণ হলেও এখান থেকে সাধারণ শিক্ষায় ৮৯২টি পদে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে