Alexa সাতক্ষীরায় যুবককে গাছে বেঁধে বসতঘর ভাঙচুর-লুটপাট

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯,   কার্তিক ২৮ ১৪২৬,   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

সাতক্ষীরায় যুবককে গাছে বেঁধে বসতঘর ভাঙচুর-লুটপাট

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৪৫ ১৮ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

সাতক্ষীরার কলারোয়ার কেড়াগাছি ইউপির বকসা গ্রামে শুক্রবার দুপুরে এক প্রভাবশালীর নেতৃত্বে বসতঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় এক যুবক জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দিয়ে ঘটনাটি জানালে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগে ছয়জনকে আটক করে।

আটকরা হলেন, বাকরা গ্রামের আশরাফুল, মোস্তাফিজুর, নজরুল, জলিল, ফিরোজ ও সেলিম।

কেড়াগাছি ইউপির বাকসা গ্রামের বাসিন্দা আজিজুল ইসলাম জানান, আব্দুল গফুরের নেতৃত্বে তার বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। ভোর ৬টার দিকে আব্দুল গফুরের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জন আতর্কিতভাবে এ হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা তার ছেলে ওসমান গণিকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন চালায়, ছেলের বউ আসমত আরা তার স্ত্রী মোমেনাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে বসতঘর ভাঙচুর করে। 

তিনি আরো জানান, ২২ শতক জমি শ্বশুর তার স্ত্রীর নামে লিখে দেয়। তিন বছর আগে সেই জমিতে ঘর তৈরি করে বসবাস করে আসছে। এই জমি তার শ্বশুরের ভাতিজারা দাবি করে। মূলত এটা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে দীর্ঘদিন। এই দ্বন্দ্বের সুযোগে আব্দুল গফুর তার ছেলের কাছে দুই লাখ টাকা দাবি করে। তারা টাকা দিতে অস্বীকার করে। পরে প্রতিপক্ষের কাছ থেকে টাকা নেয় গফুর। টাকা নেয়ার পরেই তার নেতৃত্বে তারা এ তাণ্ডব চালিয়েছে। 

অভিযোগের বিষয়ে আব্দুল গফুরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

কেড়াগাছি ইউপির সাবেক ইউপি সদস্য মারুফ হোসেন জানান, আতর্কিত এ হামলার পর স্থানীয় এক যুবক জরুরি সেবা- ৯৯৯ কল দেয়। তারপর কলারোয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ছয়জনকে আটক করে।

কলারোয়া থানার ওসি শেখ মনির উল গীয়াস বলেন, ভাঙচুর চলার সময় ঘটনাস্থল থেকে থানাতে কেউ কল দেয়নি। জরুরি সেবা ৯৯৯ থেকে নির্দেশনা পাওয়ার পর তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে থানা পুলিশের একটি টিম সেখানে পৌঁছায়। ঘটনাস্থল থেকে ছয়জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় ২২ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ১২-১৩ জনের নামে থানায় এজাহার দিয়েছেন আজিজুল ইসলাম। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ