Alexa সাঘাটায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৫ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

সাঘাটায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

গাইবান্ধা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০২ ২২ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ১৮:০৪ ২২ জুলাই ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ সাঘাটা-গাইবান্ধা সড়ক ভাঙায় যমুনা নদীর পানি ঢুকে উপজেলা সদরের সাতটি ইউপি প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন দুই লাখ মানুষ।

শনিবার বিকেল যমুনা নদীর পানি কিছুটা কমলেও সাঘাটা-গাইবান্ধা সড়কের ৩০০ ফুট ভেঙে গেছে। ফলে ভাঙা অংশ দিয়ে পানি ঢুকতে দেখা গেছে। এতে উপজেলার পদুম শহর, ভরতখালী, মুক্তিনগর, কচুয়া, কামালেরপাড়া, ঘুড়িদহ ও জুমারবাড়ি ইউপির সবকটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে বসতঘরে হাঁটু থেকে বুক পর্যন্ত পানি হয়েছে। এসব এলাকায় নৌকার প্রচলন না থাকায় পরিবার, গবাদি পশু, হাঁস-মুরগি, ঘরের আসবাবপত্র নিরাপদ স্থানে পৌঁছানো যাচ্ছে না।

ঘুড়িদহ গ্রামের হবিবুর রহমান বলেন, আমার জীবনে এতো বড় বন্যা দেখিনি। এর আগে কখনো বসতঘরে পানি ওঠেনি। এবার ঘরের ভেতর কোমর পর্যন্ত পানি হয়েছে। বিলে থাকা ১৫ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে। বীজতলা তলিয়ে গেছে। এ অবস্থা শুধু আমার নয়, উপজেলার হাজার হাজার মানুষের। এলাকার কাচা-পাকা রাস্তাঘাট, হাট-বাজার, সরকারি-বেসরকারি অফিস শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্যার পানিতে ডুবেছে।

ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, বন্যা কবলিত এলাকায় বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে। বন্যা মোকাবিলায় সরকারের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ

Best Electronics
Best Electronics