সাংবাদিকের হাতে বিস্ফোরিত শাওমি মোবাইল
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=114606 LIMIT 1

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭,   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

সাংবাদিকের হাতে বিস্ফোরিত শাওমি মোবাইল

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১১ ২৫ জুন ২০১৯   আপডেট: ২০:৪৮ ২৫ জুন ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

শাওমির নতুন স্মার্টফোনে সিমকার্ড লাগাতেই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকালে রাজধানীতে এমন ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন ডেইলি মানবকণ্ঠের সিনিয়র সাংবাদিক জাহাঙ্গীর কিরণ।

মোবাইলের ক্রেতা জাহাঙ্গীর কিরণ ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, সোমবার (২৪ জুন) রাতে বসুন্ধরা সিটির নিচতলার শাওমি শো-রুম থেকে রেডমি গো স্মার্টফোন কিনে বাসায় আনি। বিক্রেতার পরামর্শ অনুযায়ী রাতে তিন ঘন্টা চার্জ দেই। সকালে স্মার্টফোনটিতে সিমকার্ড লাগানোর জন্য পেছনের কেসিং খুলতেই ব্যাটারিতে ধোঁয়া দেখতে পাই।

তিনি আরো বলেন, ধোঁয়া দেখে সঙ্গে সঙ্গে স্মার্টফোনটি নিচে রেখে দেই। তখনই এটি বিস্ফোরিত হয় এবং আগুন ধরে যায়। মুহূর্তেই ঘর ধোঁয়ায় ছেয়ে যায়। ঘরে আমার পরিবারের সদস্যরা ছিলেন। আল্লাহর রহমতে বড় দুর্ঘটনা থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছি।

এ ঘটনার পর সাংবাদিক জাহাঙ্গীর কিরণ ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিলে তা ছড়িয়ে পরে। পরে শাওমি বাংলাদেশ এর সেলস ডিপার্টমেন্ট থেকে তার সাথে যোগাযোগ করে রিস্ফোরিত মোবাইলটি চাওয়া হয় বলে জানান কিরণ।

এ ব্যাপারে শাওমি বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ এক স্টেটমেন্টের মাধ্যমে জানায়, শাওমিতে আমরা গ্রাহকদের নিরাপত্তাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেই এবং তাই ইন্ডাস্ট্রির সর্বোচ্চ মান নিশ্চিতের জন্য আমাদের সব ডিভাইস কঠোর মান পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়। আমরা সম্মানিত এই গ্রাহকের সাথে যোগাযোগ করেছি এবং পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য তাকে ডিভাইসটি হস্তান্তর করতে অনুরোধ করেছি।

এই সমস্যা সমাধানের জন্য ঘটনাটির কারণ সম্পর্কে জানতে সঠিকভাবে তদন্ত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে, শাওমি টিম একাধিক সমাধান অফার করা স্বত্বেও ওই গ্রাহক ডিভাইসটি হস্তান্তরে অসম্মতি জানান। আমরা দ্রুত ডিভাইসটি হাতে পাওয়ার চেষ্টা করছি এবং আমরা কোন আপডেট পেলে যত দ্রুত সম্ভব নতুন তথ্য শেয়ার করবো। ডিভাইসটি হাতে না আসা পর্যন্ত আমরা কোন মন্তব্য করতে পারছি না এবং কোন পদক্ষেপও নিতে পারছি না। শাওমি পণ্য, সেবা ও কাজের মাধ্যমে গ্রাহকদের সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে এবং এর জন্য কঠোর পরিশ্রম অব্যাহত রাখবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস