Alexa সরবরাহ বাড়লেও কমেনি সবজির দাম

ঢাকা, শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬,   ০৪ রজব ১৪৪১

Akash

সরবরাহ বাড়লেও কমেনি সবজির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৮ ৩ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৪:৫৯ ৩ জানুয়ারি ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

পেঁয়াজের দাম আবারো বেড়েছে রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে। এদিকে বাজারে শীতের সবজির সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি, বরং কিছু সবজির দাম সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ানবাজার, পলাশী,  মালিবাগ, আজিমপুর, রামপুরা, খিলগাঁও অঞ্চলের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত রফতানি বন্ধ করায় পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক বেড়ে যায়। রেকর্ড ২৫০ টাকায় পৌঁছে যায় পেঁয়াজের কেজি। তবে মিশরসহ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করায় এবং দেশি নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসার পর দাম কিছুটা কমে। এতে কয়েক সপ্তাহ জুড়েই রাজধানীর বাজারগুলোতে দেশি নতুন পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছিল ১০০ টাকার মধ্যে।

কিন্তু এখন আর কোনো বাজারেই ১০০ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে না। বাজার ভেদে দেশি নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাজারে নতুন দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমে গেছে। এ কারণে আবারো দাম বেড়েছে। চাষিরা বাড়তি দামের আশায় আগাম পেঁয়াজ তোলা শুরু করেন। তাই এখন দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমে গেছে। এ কারণে দামও বেড়েছে। সামনে হয়তো পেঁয়াজের দাম আরো বাড়তে পারে।

এদিকে বাজারে সরবরাহ বাড়লেও দাম কমছে না সবজির। গত সপ্তাহের মতো বাজার ও মানভেদে প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা। দেশি পাকা টমেটোর কেজি প্রতি দাম ৬০-৮০ টাকা। আর আমদানি করা পাকা টমেটোর দাম ৫০-৬০ টাকা।

শিম, ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা ও গাজরের দাম গত সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। ভালো মানের শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩০-৪০ টাকা।গত সপ্তাহে যে ফুলকপি ২০-২৫ টাকা পিস বিক্রি হয় তার দাম বেড়ে ৩০-৩৫ টাকা হয়েছে। আর ৪০ টাকায় নেমে আসা গাজর এখন ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

দাম অপরিবর্তিত থাকা সবজির মধ্যে বেগুনের কেজি ৪০-৫০ টাকা, নতুন গোল আলু ৩০-৪০ টাকা, পেঁপে ৩০-৩৫ টাকা, মুলা ২০-৩০ টাকা, শালগম ৩০-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ক্রেতারা জানান, একের পর এক জিনিসের দাম বেড়েই চলেছে। পেঁয়াজের দাম ১৪০ টাকা হয়েছে। সবজির দামও বেশি। ফলে সংসার চালানো কষ্টকর হয়ে পড়েছে। 
 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএএম