Alexa সমস্যা রয়েছে সব দলেই

ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ১ ১৪২৬,   ১৬ সফর ১৪৪১

Akash

সাতক্ষীরা-তালা

সমস্যা রয়েছে সব দলেই

 প্রকাশিত: ১৬:৩৫ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জামায়াতে ইসলামী, ওয়ার্কার্স পার্টি, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন, জাসদ, জেএসডিসহ আরো কয়েকটি রাজনৈতিক দলের কর্মকাণ্ড রয়েছে। এসব দলে উদীয়মান ও সম্ভাবনাময় একাধিক নেতা রয়েছেন। তবে লবিং বা গ্রুপিংয়ের কারণে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির মধ্যে রয়েছে বেশ কিছু সমস্যা।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক এমপি ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক প্রণব ঘোষ বাবলুকে কেন্দ্র করে তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের মধ্যে গ্রুপিং সৃষ্টি। যা এখন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। ফলে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে।

ঘোষ সনৎ কুমার বলেন, তালায় বরাবরই আওয়ামী লীগের অবস্থা শক্তিশালী। কোনো কোনো ক্ষেত্রে স্থানীয় পর্যায়ে গ্রুপিং থাকলেও জাতীয় নির্বাচনের ক্ষেত্রে সবাই এক সঙ্গে মিলে নৌকার পক্ষে কাজ করবো।

তালা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মৃনাল কান্তি রায় ও সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম। উপজেলায় বিএনপির মধ্যে প্রকাশ্যে গ্রুপিং লক্ষ্য করা যায় না। এখানে বিএনপির নেতা-কর্মীরা সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিবের অনুসারি। তবে উপজেলা বিএনপি সভাপতি ও সম্পাদকের সঙ্গে তৃণমূল পর্যায়ের অনেক নেতা-কর্মীর মতবিরোধ রয়েছে।

উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম বলেন, মামলার কারণে দলীয় কর্মসূচি ঠিকমত করতে পারছি না। তবে লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড পেলে আমরা কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে যেতে পারবো।

তালা উপজেলা জামায়াতের সাংগঠনিক কৌশল ভিন্ন প্রকৃতির হওয়ায় এখানে দলটির মধ্যে কোনও গ্রুপিং নেই। বর্তমানে প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও দলটির সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড জোরদার রয়েছে। সংসদ নির্বাচনে এককভাবে প্রার্থী দেয়ার মতো বিপুল সংখ্যক কর্মী ও সমর্থক রয়েছে তাদের।

তালা উপজেলা জাতীয় পার্টি মূলত দলটির স্থানীয় নেতা, সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখতের অনুগত। এক সময় দলটির বিপুল সংখ্যক নেতা, কর্মী ও সমর্থক ছিল। কিন্তু দলটির সভাপতি এস.এম. নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দীনের একের পর এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে দলে এখন নেতা-কর্মী ও সমর্থক তুলনামূলক ভাবে অনেক কমে গেছে। সংগঠনের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও এম. এম. মোকবুল হোসেনসহ সংগঠনের সাবেক একাধিক নেতার সঙ্গে বর্তমান সভাপতি ও সম্পাদকের বিরোধসহ গ্রুপিং রয়েছে। ফলে দিন দিন এখানে জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক শক্তি দুর্বল হয়ে পড়ছে।

এস.এম. নজরুল ইসলাম বলেন, তালা উপজেলায় জাতীয় পার্টির অসংখ্য কর্মী ও সমর্থক রয়েছে ।

এছাড়া এখানে জাসদ, জেএসডি, ওয়ার্কার্স পার্টি ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের সাংগঠনিক কার্যক্রম থাকলেও এই দলগুলোর নেতা-কর্মী কম থাকায় এদের নেতা-কর্মীদের মধ্যে কোনও গ্রুপিং চোখে পড়ে না। যদিও ওয়ার্কার্স পার্টি দলীয় এমপি (অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ) রয়েছেন এই উপজেলা তথা সংসদীয় আসনে।

>>>কাল থাকছে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার রাজনীতি...

ডেইলি বাংলাদেশ/আজ/এমআরকে