Alexa সবারই চাওয়া সুষ্ঠু নির্বাচন

ঢাকা, বুধবার   ২১ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৭ ১৪২৬,   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

গাজীপুর সিটি নির্বাচন

সবারই চাওয়া সুষ্ঠু নির্বাচন

 প্রকাশিত: ২০:৪৫ ২৭ এপ্রিল ২০১৮  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের সবারই চাওয়া একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন। প্রার্থীদের চেয়ে সমর্থকদের মাঝেই উত্তেজনা বেশি। নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে প্রশাসন। আয়তনের দিক থেকে দেশের বৃহত্তম গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আর মাত্র ১৭ দিন বাকি। প্রতিদ্বন্দ্বি দলগুলোর নেতা-কর্মীরা নিজেদের অভ্যন্তরীণ সমস্যা মিটিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন।

বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে মহানগরের বড়বাড়ী এলাকা থেকে এবং আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সকাল সাড়ে ৮টায় নিজ বাড়ি ছয়দানা এলাকা থেকে প্রচারণা শুরু করেছেন। অপরদিকে ইসলামী ঐক্যজোট প্রার্থী ফজলুর রহমানও জুমার নামাজ থেকে প্রচরণা শুরু করেন।

ভোটারদের অবাধে ভোট কেন্দ্রে যাওয়া নিয়ে শঙ্কিত ২০ দল সমর্থিত বিএনপি প্রার্থী সাবেক এমপি হাসান উদ্দিন সরকার। তিনি বলেন, প্রশাসনকে সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে। প্রশাসন যদি সরকারের নিয়ন্ত্রণে চলে জনগণকে নিয়ে জবাব দেয়া হবে।

তিনি বলেন, সরকার এতো উন্নয়ন করেছে। কই এখনো তো অনেক রাস্তাঘাটে চলাচল করা যায় না। তা কি তাদের চোখে পড়ে না। তারা যত ভুল করবে বিএনপির তত লাভ হবে। পরে তিনি কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের নিয়ে খাইলকুর, হিন্দুবাড়ি মোড়, বটতলা এলাকা, ঝাজর, ডেগের চালাসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেছেন। তিনি ডেগের চালা জামতলা জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন সাবেকমন্ত্রী আলতাব হোসেন চৌধুরী, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, সাবেক মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী, মোস্তফা জামাল হায়দার, সাবেক এমপি একেএম ফজুলল হক মিলন, আহসান হাবিব লিংকন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী ছায়েদুল আলম বাবুলসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। পরে তারা মহানগরের চান্দনা এলাকায় গণসংযোগ করেন। এছাড়া শুক্রবার ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিকদল জামায়াতের গাজীপুর মহানগরের আমীরসহ ৪৫ নেতাকর্মীকে প্রচারণার সময় পুলিশ আটক করায় বিএনপি প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে জানান তারা।

এদিকে, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, নির্বাচন হবে উৎসবমুখর পরিবেশে সাধারণ মানুষ ঝাঁপিয়ে পড়েছে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে। আমরা চাই একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিয়ে সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে হবে। আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী জুমার নামাজের আগ পযর্ন্ত নিজ বাসায় এবং আশপাশ এলাকায় গণসংযোগ ও গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিয় করেন। পরে তিনি মহানগরের বোর্ড বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। নামাজের পর তিনি মুসল্লিদের নিকট নৌকা মাকায় ভোট চান। পরে বিকেলে তিনি সিটি করপোরেশনের ৩৫, ৩৬ ও ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ ও পথসভায় এলাকাবাসির নিকট নৌকা মাকায় ভোট প্রার্থনা করেন।

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি আজমত উল্লাহ খান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য সারা দেশে ব্যাপক উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীকে জয়যুক্ত করতে হবে। সিটি নির্বাচনে সেই গণজোয়ার লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

অন্যদিকে ভোটাররাও চান অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে যোগ্য ও নিরপেক্ষ প্রার্থীকে ভোট দিতে। ভোটাররা জানান, সবসময় যাকে কাছে পাওয়া যাবে এবং সিটি এলাকার রাস্তাঘাট ও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা যার মাধ্যমে সহজে করা যাবে, মেয়র হিসেবেই তাকে ভোট দেয়া উচিৎ। দলমত নির্বিশেষে এ ধরনের প্রার্থীকেই আমাদের বেছে নেয়া উচিত।

গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবির জানিয়েছেন, একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে সরকার ও নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে যা করা প্রয়োজন সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব, গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী মাওলানা মো.ফজলুর রহমান শুক্রবার চান্দনা চৌরাস্তা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। এসময় তিনি মুসুল্লিদের সঙ্গে মত বিনিময় এবং মিনার প্রতীকে ভোট ও দোয়া চান। এ ছাড়াও তিনি টঙ্গী বাজার, কলেজ গেট, চেরাগ আলী, স্টেশন রোড কোনাবাড়ি, কাশিমপুরসহ সিটির বিভন্ন এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগ করেন। ভোটারদের কাছে যান।

এছাড়াও হাত পাখা প্রতীকের প্রার্থী নাসির উদ্দিন বড়বাড়ি, তারগাছসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেছেন। বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টির মেয়র প্রার্থী রুহুল আমিন, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের নাসির উদ্দিন, ইসলামী ফ্রন্টের জালাল উদ্দিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদ উদ্দিনসহ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থীরাও উৎসবমূখর পরিবেশে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। নগরীর সবত্রই পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আজ/এমআরকে

Best Electronics
Best Electronics