সবজির বাজার স্থিতিশীল, কমছে না মাছ মাংসের দাম

ঢাকা, শনিবার   ১১ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২৮ ১৪২৭,   ২০ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

সবজির বাজার স্থিতিশীল, কমছে না মাছ মাংসের দাম

 প্রকাশিত: ১৪:০৩ ২৩ মার্চ ২০১৮   আপডেট: ১৪:৩৭ ২৩ মার্চ ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বাজারে সবজির জোগান স্বাভাবিক থাকলেও,কমছে না দরদাম। গেলো সপ্তাহের দামেই বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের শাক-সবজি। মাংসের দামও অপরিবর্তিত। তবে বাজারভেদে মাছের দাম কিছুটা ওঠানামা করছে।

শুক্রবার ঢাকা উত্তরের কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়- সজনে ডাটা এক আটি বিক্রি হচ্ছে ৩০টাকা, টমেটো ২৫টাকা কেজি, আলু দেশি ২০ টাকা কেজি, আলু ডায়মন্ড ১৫ টাকা কেজি, বেগুন ৩০ টাকা কেজি, কাচা মরিচ ৫০ টাকা কেজি, শসা ৪০ টাকা কেজি, ক্ষিরা ৩০ টাকা কেজি, লাউ ২০ থেকে ৩০ টাকা প্রতি পিস, ঢেড়স ৬০ টাকা কেজি, পটল ৬০ টাকা কেজি, ব্রকলি ৩০ টাকা পিস, শিম ৫০ টাকা, মূলা ২০টাকা কেজি, পেপে ২০ টাকা কেজি, লেবু ৩০/৪০ টাকা হালি, করলা ৫০ টাকা, চাল কুমড়া এক পিস ২০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া এক ফালি ২০/২৫ টাকা, কাঁচা কলা ২৫/৩০ টাকা, দেশি পেঁয়াজ ৫০, ইন্ডিয়ার পেঁয়াজ ৪৫ টাকা, বিদেশি রসুন ১০০, দেশি রসুন ৬৫, চিনি ৬০ এবং আদা ১০০ টাকা কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে।

লাল শাক এক আটি বিক্রি হচ্ছে ৮ থেকে ১০ টাকায়, পুই শাক এক আটি ২৫ টাকা, লাউ শাক এক আটি ২৫ থেকে ৩০ টাকা, কলমি শাক এক আটি ১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

উত্তরা আজমপুর কাঁচা বাজারের বিক্রেতা আরিফ মিয়া ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, রমজান মাস আইতাছে, তাই দাম কিছুটা বাড়বার পারে।

এদিকে ডাল,ডিম, সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই।

উত্তর সিটি’র বেশ কয়েকটি বড় মাছ বাজারে ঘুরে দেখা যায়, কাতলা মাছ ২৪০/২৫০টাকা কেজি, সিলভারকার্প ১৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৩০ টাকা, শিং ৪০০ টাকা কেজি, বোয়াল ৩০০/৩৫০ টাকা কেজি, পাবদা মাছ ৫০০ টাকা কেজি, ইন্ডিয়ান রুই ২১০ থেকে ২৩০ টাকা, দেশি রুই ২৫০ থেকে ৩২০ টাকা কেজি, মৃগেল মাছ ১৪০ টাকা, পাঙ্গাস মাছ ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, মাঝারি আকারের প্রতি পিস ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকায়।

ব্রয়লার মুরগী ১৩৫ টাকা কেজি, দেশি মুরগী ২৪০ থেকে ২৬০ টাকা, কক ১৬৫টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। গরুর মাংস ৪৮০ থেকে ৫২০টাকা, খাসির মাংস ৭০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

আজমপুর থেকে বাজার করতে আসা বেসরকারি উন্নয়নকর্মী মো.জসিম উদ্দিন জানান, এখনতো তাও মোটামুটি কিনতে পারছি, রমজান আসলে কি যে হয়! তাই সে আশঙ্কা থেকে আগেভাগেই বাজারে প্রশাসনিক নজরদারি বাড়ানোর জোর দাবি জানান এই ক্রেতা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএসএইচএস/টিআরএইচ/এলকে